সিপিএল খেলতে যাচ্ছেন সাকিব

0
178
ছবি: ক্রিকবাজ

সাকিব আল হাসান টি-২০র ফেরিওয়ালা। বিশ্বের প্রায় সব ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগেই খেলেন তিনি। আইপিএল ও সিপিএলে একটু বেশিই নিয়মিত সব্যসাচী এ ক্রিকেটার। যদিও গতবছর ইনজুরির কারণে সিপিএলে খেলতে পারেননি। এবারও সিপিএল প্লেয়ার ড্রাফটে ছিলেন। জাতীয় দলের ব্যস্ত সূচির থাকায় এবারও সিপিএল টি-২০ টুর্নামেন্টে প্রথমে খেলতে চাননি বাংলাদেশের এ ক্রিকেটার। যে কারণে প্লেয়ার ড্রাফট থেকে আফিফ হোসেন ছাড়া বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের নেয়নি ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো।

বিসিবি ছাড়পত্র না দেওয়ায় আফিফকেও পায়নি সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস। মঙ্গলবার রাতে জাতীয় দলের খেলা শেষ হয়ে গেলেও সিপিএলে খেলার ছাড়পত্র দেওয়া হচ্ছে না জাতীয় দলের এ তরুণকে। তবে গতকাল জানা গেছে আফিফ না পেলেও সাকিবকে সিপিএলে খেলার ছাড়পত্র দিয়েছে বিসিবি।

সাকিব জানান, ক্যারিবীয় টি২০ প্রিমিয়ার লিগে খেলতে কাল আমেরিকার উদ্দেশে দেশ ছাড়বেন তিনি। বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টের হয়ে খেলবেন বিশ্বের অন্যতম এ সেরা অলরাউন্ডার। এরই মধ্যে সিপিএলের প্রথম লেগের খেলা শেষ। ফিরতি লেগের খেলাও শুরু হয়ে গেছে। বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টের ফিরতি লেগের পাঁচটি ম্যাচ বাকি আছে। প্রথম লেগের পাঁচ ম্যাচ থেকে দুই জয়ে চার পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্ট।

সাকিবকে দলে নিয়ে শেষদিকে কিছু ম্যাচ জিতে রেসে থাকার চেষ্টা করবে দলটি। টুর্নামেন্টের ফাইনাল হবে ১২ অক্টোবর। এ পর্যন্ত হয়তো ম্যাচ খেলতে পারবেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ থেকে জানা গেছে, চার থেকে পাঁচটি ম্যাচ খেলে দেশে ফিরবেন সাকিব। কারণ সামনে ভারত সফরের প্রস্তুতি নিতে হবে তাকে। টুর্নামেন্টে যোগ দিয়ে লিগ রাউন্ডে চারটি ম্যাচ হয়তো পাবেন সাকিব। ২০১৩ সালে এই বার্বাডোজ ট্রাইডেন্ট দিয়েই সিপিএলে অভিষেক সাকিবের। ২০১৮ সালেও ট্রাইডেন্ট নিয়েছিল তাকে। ২০১৬-১৭ মৌসুমে জ্যামাইকা তালাওয়াসে ছিলেন সাকিব।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে