করোনা: আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেল ভারত

0
91
শনিবার সকাল নাগাদ ভারতের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮৫ হাজার ৭৮৪ জন।

বিশ্বে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেল ভারত।

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্সেস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) তথ্য অনুযায়ী,শনিবার সকাল নাগাদ ভারতের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮৫ হাজার ৭৮৪ জন। অন্যদিকে গত বছরের ডিসেম্বরে যে চীন থেকে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি সেই চীনে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৮৪ হাজার ৩৮ জন।

তবে আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেলেও ভারতের মৃতের সংখ্যা চীনের তুলনায় অনেক কম। সিএসএসই’র তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল পর্যন্ত দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭৫৩ জনের। অন্যদিকে এখন পর্যন্ত চীনে মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৬৩৭ জন। অবশ্য বেশ কিছুদিন ধরেই চীনে করোনায় নতুন করে কারও মৃত্যু হয়নি।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যের বরাত দিয়ে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটিতে মৃত্যুর হার এখনও চীনের ৫.৫ শতাংশের তুলনায় ৩.২ শতাংশ, যা উল্লেখযোগ্যভাবেই বেশ ভালো। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ২৭ হাজারেরও বেশি মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অবশ্য চীনে এখন পর্যন্ত সেড়ে উঠেছেন ৭৮ হাজারেরও বেশি মানুষ।

সিএসএসই’র তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৫ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্বে মোট আক্রান্তের এক-তৃতীয়াংশই যুক্তরাষ্ট্রে। প্রাণঘাতী এই রোগে এখন পর্যন্ত বিশ্বে মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখেরও বেশি মানুষের। রাশিয়া, যুক্তরাজ্য এবং স্পেন দ্বিতীয়, তৃতীয় এবং চতুর্থ স্থানে রয়েছে। প্রতিটি স্থানেই দুই লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত।

চীনের শহর উহান, অর্থাৎ মারাত্মক এই ভাইরাসের কেন্দ্রস্থলে নতুন করে আক্রান্ত হওয়ার কিছু ঘটনা প্রকাশিত হওয়া সত্ত্বেও, এই মুহূর্তে সেদেশে ১০০ জনেরও কম মানুষ কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন।

চীন ও অন্যান্য বেশ কয়েকটি দেশ যখন নিজস্ব অর্থনীতি ফের চালু করতে শুরু করেছে, তখনই ভাইরাসের সম্ভাব্য পুনরুত্থান সম্পর্কে নতুন উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

শুক্রবার ভারতে, কাশ্মীর থেকে শুরু করে কেরালা এবং কর্ণাটক থেকে শুরু করে বিহার পর্যন্ত মারাত্মক এই ভাইরাসের আরও সংক্রমণের খবর মিলেছে। অন্যদিকে সোমবার থেকে শুরু হতে চলা লকডাউনের চতুর্থ পর্যায়ে বিধিনিষেধ আরও বেশি শিথিল করার কথা বলা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে