এই খর্বকায়দের কেউ অভিনেতা, কেউ বডিবিল্ডার

0
253

এই খর্বকায়দের কারও উচ্চতা দু’ফুট, তো কারও আবার দেড় ফুট। তারা অনেকেই আবার খর্বকায় ব্যক্তি হিসেবে গিনেস রেকর্ড অর্জন করেছেন। তাদের সম্পর্কে চমকপ্রদ তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

জুনরি বালাউইং: প্রায় ১ ফুট ১১.৬২ ইঞ্চি উচ্চতার জুনরি বালাউইং গিনেজ রেকর্ড অনুয়াযী বিশ্বের খর্বকায় ব্যক্তি। ১৯৯৩ সালে ফিলিপিন্সের সিন্দানগানে এক কামার পরিবারে জন্ম হয় জুনরির। চার ভাইবোনের মধ্যে জুনরিই সবার বড়। এক বছর বয়স থেকেই তার শারীরিক বৃদ্ধি থেমে যায়।

স্টেসি হেরল্ড: কেন্টাকির বাসিন্দা স্টেসির উচ্চতা ছিল ২ ফুট ৪ ইঞ্চি। চিকিৎসা বিজ্ঞান অনুযায়ী, অস্টিওজেনেসিস ইমপারফেক্টা নামে জিনগত সমস্যার কারণে সাধারণ মানুষের মতো শারীরিক বৃদ্ধি হয়নি তার। স্টেসির তিন সন্তান রয়েছে— দুই মেয়ে ও এক ছেলে। তারা প্রত্যেকেই স্বাভাবিক উচ্চতার অধিকারী।৪৪ বছর বয়সে মৃত্যু হয় বিশ্বের খর্বকায় এই নারীর।

অজয় কুমার: গিনেস পাকরু নামে পরিচিত মালয়ালম হাস্যকৌতুক অভিনেতা অজয়। খর্বকায় অভিনেতা হিসেবে গিনেস রেকর্ড রয়েছে তার। অজয়ের উচ্চতা ২ ফুট ৬ ইঞ্চি।

জ্যোতি আমগে: ১৯৯৩ সালে ভারতের নাগপুরে জন্ম। পেশায় অভিনেত্রী। ২০১১ সালে বিশ্বের খর্বকায় নারী হিসেবে ঘোষণা করে গিনেস। তার উচ্চতা ২ ফুট ০.৬ ইঞ্চি। অ্যাকোন্ড্রোপ্লাসিয়া নামে জিনগত সমস্যার কারণে তার শারীরিক বিকাশ ঘটেনি। বিগ বস ৬-এর প্রতিযোগী ছিলেন তিনি।

এডওয়ার্ড নিনো হার্নান্ডেজ: ২০১০ সালে বিশ্বের খর্বকায় ব্যক্তি হিসেবে গিনেস রেকর্ড করেন। ২৪ বছর বয়সে তার উচ্চতা ছিল ২ ফুট সাড়ে ৩ ইঞ্চি। ওজন ছিল ১০ কেজি। ১৯৮৬ সালে জন্ম কলম্বিয়ার বোগোটায়। নেপালের খগেন্দ্র থাপার আগে খর্বকায় পুরুষ হিসেবে রেকর্ড ছিল তার।

খগেন্দ্র থাপা: এডওয়ার্ড নিনো হার্নান্ডেজের পর বিশ্বের খর্বকায় পুরুষ হিসেবে রেকর্ড ছিল নেপালের বাসিন্দা খগেন্দ্রর। তার উচ্চতা প্রায় ২ ফুট আড়াই ইঞ্চি। স্থানীয়দের কাছে তিনি ‘লিটল বুদ্ধ’ নামে পরিচিত।

আদিত্য রোমিও: বিশ্বের খর্বকায় বডি বিল্ডার। উচ্চতা ২ ফুট ৯ ইঞ্চি। ওজন ৯ কিলোগ্রাম। পাঞ্জাবের কাপুরথালার ফাগওয়ারায় ১৯৮৮ সালে জন্ম তার। মাত্র ২৩ বছর বয়সে ২০১২ সালে মৃত্যু হয় তার। সূত্র: আনন্দবাজার

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে