অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধূ ও নাতনিকে ‘হত্যার পেছনে নতুন কাপড়’

0
405
প্রতীকি ছবি

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধূ ও নাতনিকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার আন্ডারচর ইউনিয়নের কাজিরচর গ্রামে গতকাল শনিবার এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শ্বশুরকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত পুত্রবধূর নাম ফারহানা বেগম ওরফে পান্না (২৪)। নাতনির নাম শারমিন (৩)। পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে আজ রোববার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

আটক শ্বশুরের নাম আইয়ুব আলী (৫০)। তিনি আন্ডারচর ইউনিয়নের কাজিরচর গ্রামের বাসিন্দা।

ফারহানা বেগমের পরিবারের অভিযোগ, ফারহানার স্বামী মো. সুমন তাঁর বাবা আইয়ুবকে না জানিয়ে এক সপ্তাহ আগে স্ত্রীকে একটি নতুন পেটিকোট ও ব্লাউজ কিনে দেন। এ নিয়ে সপ্তাহজুড়ে ওই পরিবারের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। ওই ঝগড়ার সূত্রে পুত্রবধূ ও নাতনিকে হত্যা করেছেন আইয়ুব।

ফারহানার বাবা আবুল কালাম আজ দুপুরে বলেন, পাঁচ বছর আগে তাঁর মেয়ের সঙ্গে আইয়ুব আলীর ছেলে সুমনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর বাড়ির সদস্যরা ফারহানার ওপর নানা অজুহাতে অত্যাচার-নির্যাতন করত। মাঝে মাঝে ফারহানাকে না খাইয়ে রাখত। তবে ফারহানা কখনো এসবের প্রতিবাদ করেনি।

আবুল কালাম বলেন, ফারহানার স্বামী ও শ্বশুর এলাকায় কৃষিকাজ করেন। সপ্তাহখানেক আগে স্বামী সুমন বাজার থেকে ফারহানার জন্য নতুন একটি পেটিকোট ও ব্লাউজ কিনে আনেন। এ নিয়ে শ্বশুর আইয়ুব আলী সংসারে ঝগড়া শুরু করেন। এ নিয়ে একাধিকবার শ্বশুর ও ননদ ফারহানাকে মারধর করেন। তবে এ বিষয়ে ফারহানার স্বামী কোনো প্রতিবাদ করেনি।

আবুল কালাম অভিযোগ করেন, সবশেষ গতকাল শনিবার সকাল নয়টার দিকে স্বামী সুমন বাড়ির থেকে বেরিয়ে গেলে শ্বশুর আইয়ুব আলী ও পরিবারের সদস্যরা মিলে ফারহানাকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। এ সময় ফারহানার তিন বছরের মেয়ে শারমিন ঘটনা দেখে চিৎকার দিলে তাকেও একই কায়দায় হত্যা করা হয়। পরে একটি রশির দুই মাথার মা-মেয়ের লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়। পরে লাশ নামিয়ে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নবীর হোসেন বলেন, বসতঘরে মা-মেয়ের লাশ পড়ে থাকার খবর পেয়ে গতকাল শনিবার বিকেলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। উদ্ধার করা লাশ দুইটির গলায় কালো দাগ ছিল। নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে শ্বশুর আইয়ুব আলীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে