মেসির সঙ্গে সেলফি তুলতে কী না করলেন চীনা ভক্ত

0
131
অনেক চেষ্টার পর মেসিকে পেছনে রেখে দূর থেকেই একটি সেলফি তুলতে পেরেছেন চীনা নাগরিক লিউ ইউহাং

বিলাসবহুল হোটেলের কক্ষ ভাড়া, ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা, অতঃপর বাইসাইকেল নিয়ে বেইজিং শহরের রাস্তায় প্রিয় তারকার পিছু নেওয়া—আর্জেন্টিনার ফুটবল তারকা লিওনেল মেসিকে একনজর দেখতে এর সবই করেছেন চীনের এক ভক্ত। এত কিছু করার পর তিনি কেবল প্রিয় ফুটবলারের সঙ্গে একটি ঝাপসা সেলফি তুলতে পেরেছেন।

আর্জেন্টিনার তারকা ফুটবলার মেসি অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে একটি প্রীতি ম্যাচে অংশ নিতে এখন চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে আছেন। আগামী বৃহস্পতিবার ওই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

নিজেদের শহরে মেসিকে পেয়ে চীনা ভক্তরা তাঁকে একনজর দেখার সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইছেন না। তাঁদেরই একজন ২৬ বছর বয়সী কম্পিউটার প্রোগ্রামার লিউ ইউহাং। তিনি উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় লিয়াওনিং প্রদেশের বাসিন্দা। এক দশক আগে মেসির ‘প্রেমে’ পড়েন তিনি।

গতকাল সোমবার বার্তা সংস্থা এএফপিকে লিউ ইউহাং বলেন ‘তিনি (মেসি) শুধু একজন খেলোয়াড়ই নন, তিনি একজন শিল্পী। তিনি আমার জীবনকে অনেক বেশি অর্থপূর্ণ করে তুলেছেন এবং আমার আদর্শ হয়ে উঠেছেন।’

মেসি চীন সফরে আসছেন শুনে পুলকিত বোধ করেন উল্লেখ করে লিউ বলেন, তবে তিনি জানতেন, সামনাসামনি মেসিকে পেতে তাঁর অনেক কাঠখড় পোহাতে হবে।
আর্জেন্টিনার ফুটবল দলটি চীনের যে হোটেলটিতে উঠেছে, সেটির সামনে মেসিকে দেখার জন্য অনেক ভক্ত ভিড় জমিয়েছিলেন। লিউও শুরুতে সেখানে গিয়েছিলেন। তবে অত ভিড়ের মধ্যে মেসিকে ভালোভাবে দেখতে পারেননি।

তবে হাল ছাড়েননি লিউ। প্রিয় তারকাকে দেখতে ওই হোটেলের একটি বিলাসবহুল কক্ষ ভাড়া করে ফেলেন তিনি। এর জন্য তাঁকে দুই হাজার ইউয়ানের বেশি গুণতে হয়েছে। তবে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার কারণে সেখানেও তিনি মেসির দেখা পাননি।

অবশেষে গত রোববার সেই ‘সুযোগ’ আসে। তিনি দেখতে পান, আর্জেন্টিনা দলের খেলোয়াড়দের বহনকারী বাস হোটেল থেকে বের হচ্ছে। খেলোয়াড়রা প্রশিক্ষণের জন্য একটি মাঠে যাচ্ছেন।

এরপর লিউ একটি বাইসাইকেলে চেপে তাঁদের পিছু নেন এবং গরমের মধ্যে বেইজিংয়ের রাস্তায় রাস্তায় বাসের পেছনে পেছনে ছুটতে থাকেন।

শেষ পর্যন্ত লিউ তাঁর প্রিয় খেলোয়াড় মেসিকে দেখতে পেয়েছেন। বাসের পেছনের আসনে বসা মেসি তাঁর দিকে হালকা করে হাত নাড়ান। লিউ তখন মেসিকে পেছনে রেখে দূর থেকেই একটি সেলফি তোলেন। সেলফিতে লিউর পেছনে বাসে বসে থাকা মেসিকে ঝাপসা দেখা যাচ্ছে।

লিউ বলেন, ‘ওই সময় আমার অনেক আনন্দ হচ্ছিল। এর জন্য আমি প্রচুর অর্থ খরচ করেছি। তা না করলে আমাকে সব সময় এ নিয়ে পস্তাতে হতো।’

মেসি গত শনিবার বেইজিং পৌঁছান। সেখানে ৬৮ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতার ওয়ার্কার্স স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলায় আর্জেন্টিনা ফুটবল দলকে নেতৃত্ব দেবেন তিনি।

প্রীতি ম্যাচটির টিকিটের দাম ধরা হয় ৫৮০ থেকে ৪ হাজার ৮০০ ইউয়ান। তবে বিক্রি শুরু হওয়ার পর দ্রুত সব টিকিট ফুরিয়ে গেছে। ইচ্ছা থাকলেও অনেক ভক্ত টিকিট কিনতে পারেননি। লিউও তেমনই একজন।

লিউ জানান, বন্ধুদের সঙ্গে অনলাইনে ম্যাচটি উপভোগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.