‘মনে হয়েছে বিয়ের কার্ড বিতরণ করছি’

0
206
জাহারা মিতু

অবশেষে বড় পর্দায় অভিষেক হয়েছে আপনার। শঙ্কা ছিল কি?

ঠিক শঙ্কা ছিল না। কারণ, এটি একটি ভিন্ন রকম ছবি। বাণিজ্যিক ছবির ক্ষেত্রে দর্শকের যে উচ্ছ্বাস থাকত, সেটা এই ছবিতে মিস করছি। মোট কথা, আমি নিশ্চিত, প্রথম ছবি দিয়ে সব শ্রেণির দর্শকের কাছে পৌঁছানো হবে না আমার। এদিক দিয়ে একটু আফসোস থেকেই যাবে। তবে এই ছবির সঙ্গে কাজী হায়াত, মুনতাসীর মামুন, জয় বাংলা নাম ও শব্দগুলো জড়িয়ে আছে,এতেই আমি খুশি।

ছবিটির মুক্তি উপলক্ষে বিভিন্ন গণমাধ্যমের অফিসে অফিসে ঘুরেছেন। অভিজ্ঞতা কেমন?

আমার একটা আফসোস রয়ে গেছে। আমি গোয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে ফিরে টাইফয়েডে আক্রান্ত হয়েছিলাম। আমি শারীরিকভাবে দুর্বল। ফলে প্রচার–প্রচারণায় খুব একটা সময় দিতে পারছি না। তারপরও ছবিটি হলে গিয়ে দেখার কথা বলতে কিছু কিছু জায়গায় গিয়েছি। প্রচার করতে গিয়ে মনে হয়েছে, বিয়ের কার্ড বিতরণ করছি। বিয়ের দাওয়াত দিতে কার্ড নিয়ে বাড়ি বাড়ি যেতে হয়, ছবির প্রচারে গিয়ে তেমন একটা অনুভূতি হয়েছে আমার। মজাই লেগেছে। ভিন্ন অনুভূতি, ভিন্ন অভিজ্ঞতা।

জাহারা মিতু

জাহারা মিতু

সিনেমায় অভিনয় করবেন, এমনটা কখনো ভেবেছিলেন?

যখন জয় বাংলা, শত্রু, কুস্তিগির সিনেমাগুলোয় পরপর কাজ করি, তখন আমার সিনেমার নেশাটা ধরেছে। তার আগে সিনেমা করা বা করব—কোনো আগ্রহই ছিল না। প্রথম ছবি আগুন-এ শাকিব খানের নামের ওপর, বদিউল আলম খোকনের নামের ওপর কাজ শুরু করি। এরপর দেবের নামের ওপর কমান্ডো ছবিতে কাজ শুরু করি। তখনো সিনেমা নিয়ে কোনো উন্মাদনা ছিল না নিজের মধ্যে। আগুন ছবিতে কাজের জন্য যখন প্রস্তাব আসে, তখন মাকে জানালে মা বলেছিলেন, ‘মিডিয়ার সর্বোচ্চ জায়গায় সিনেমা, সর্বোচ্চ নাম শাকিব খান। তাঁর কাছ থেকে যেহেতু প্রস্তাবটা এসেছে, সুতরাং তোমার কাজ করা উচিত।’ এরপর কাজ শুরু করি। কিন্তু তখনো সিনেমা করার জন্য করিনি। এরপর টানা তিন-চারটা কাজ করার পর মনে হলো, সিনেমা করাটা আমার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। তখনই সিনেমায় অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নিই।

প্রথম ছবি আগুন–এ শাকিব খানের মতো বড় তারকার সঙ্গে শুটিংয়ে অভিষেক হয়েছে। কিন্তু সেটি প্রথমে মুক্তি পেল না। আফসোস হচ্ছে কি?

না, কোনো আফসোস নেই। আগুন ছবিটি বড় ধামাকা হিসেবে দর্শকের জন্য অপেক্ষা করছে। আমার মনে হয়, বড় ক্যানভাসের ছবিটা একটু পরেই আসা ভালো। আমি যখন আগুন ছবিতে কাজ শুরু করি, তখন নায়িকা হওয়ার  স্বপ্ন ছিল না। এখন স্বপ্ন আছে। ছবিটি নিয়ে আমার স্বপ্ন আছে। আগুন আমার সিনেমার বড় দুয়ার খুলে দিতে পারে। আমি চাই আগুন ছবিটি ধীরেসুস্থে মুক্তি পাক।

জাহারা মিতু

শাকিব খান, এরপর দেব এবং সব শেষ বাপ্পী চৌধুরী। কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?

কাজের অভিজ্ঞতা ভালো। আসলে যখন পর্দা ভাগাভাগি করি, তখন শাকিব খান, দেব বা বাপ্পী কোনো বিষয় নয়। কাজের সময় আমার চরিত্র নিয়ে ভাবি, চরিত্র মাথায় থাকে। তবে সহশিল্পী হিসেবে তিনজনের কাছ থেকেই আমি যে পরিমাণ বন্ধুসুলভ আচরণ আর সহযোগিতা পেয়েছি, তাঁদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমার মতো নবীন শিল্পীকে দুহাত ভরে গ্রহণ করেছেন তাঁরা। আমার সৌভাগ্য এটি।

দীর্ঘ বিরতির পর ঢাকার অদূরে গাজীপুরের একটি রিসোর্টে শুরু হয়েছে ‘আগুন’ ছবির শুটিং। টানা কয়েক দিন ধরে শুটিং হয়েছে। ছবির শুটিংয়ে শাকিব খান ও জাহারা মিতু

দীর্ঘ বিরতির পর ঢাকার অদূরে গাজীপুরের একটি রিসোর্টে শুরু হয়েছে ‘আগুন’ ছবির শুটিং। টানা কয়েক দিন ধরে শুটিং হয়েছে। ছবির শুটিংয়ে শাকিব খান ও জাহারা মিতু

উপস্থাপনা দিয়ে বিনোদন জগতে আপনার যাত্রা । কিন্তু এখন আর উপস্থাপনায় দেখা যায় না। কেন?

২০১৮ সালে বিশ্বকাপ ফুটবল, ২০১৯ সালে বিশ্বকাপ ক্রিকেট, বিপিএল ক্রিকেটের উপস্থাপনা করেছি। এরপর করা হয়নি। যেহেতু এখন স্বপ্ন বড় পর্দাকে ঘিরে, তাই এখন আর ছোট পর্দায় কাজ করছি না। তবে বিশেষ কিছু হলে দু-একটি  উপস্থাপনার কাজ করা যেতেই পারে।

জাহারা মিতু

আর ছবির খবর কী?

আগুন ছবির শুটিং দীর্ঘদিন বাকি ছিল। সম্প্রতি সংলাপ অংশের সব কাজ শেষ। ডাবিংও শেষ। এখন দুটি গান বাকি আছে। কুস্তিগির নামের একটি ছবি সেন্সর পাস হয়েছে। শক্র নামের আরেকটি ছবির শুটিং শেষ। সেন্সরে জমা পড়বে। আপাতত এগুলোই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.