থাইল্যান্ডে ৯ বছর আটক থাকা উইঘুর শরণার্থীর মৃত্যু

0
94
২০১৪ সালের মার্চ মাসে মালয়েশিয়ার সীমান্তের কাছে ৩৫০ জন উইঘুরকে আটক করা হয়েছিল।

চীন থেকে পালিয়ে থাইল্যান্ডে নয় বছর আটক থাকা একজন উইঘুর ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর দেশটিতে আটক অবস্থায় দুইজন উইঘুর শরণার্থীর মৃত্যু হলো।

মারা যাওয়া ব্যক্তির নাম মাত্তোহতি মাত্তুরসুন, তিনি মুহাম্মাদ তুরসুন নামেও পরিচিত ছিলেন। তার বয়স ছিল ৪০ বছর। ওয়ার্ল্ড উইঘুর কংগ্রেস এবং উইঘুর হিউম্যান রাইটস প্রজেক্ট (ইউএইচআরপি) বিবৃতি জানায়, গত ২১ এপ্রিল ব্যাংককের সুয়ান ফ্লু ইমিগ্রেশন ডিটেনশন সেন্টারে লিভার ফেইলিউরের কারণে তার মৃত্যু হয়। খবর- আল-জাজিরার।

২০১৪ সালের মার্চ মাসে থাইল্যান্ড হয়ে মালয়েশিয়ার দিকে যাওয়ার সময় শিশুসহ ৩৫০ জন উইঘুরকে আটক করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে ছিলেন এই মাত্তোহতিও। পরের বছর প্রায় ১৭০ জনকে তুরস্কে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল এবং শতাধিক ব্যক্তিকে চীনে ফেরত পাঠানো হয়েছিল। বাকিরা দীর্ঘ নয় বছর ধরে উদ্বাস্তু হিসেবে দুর্দশার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

ওয়ার্ল্ড উইঘুর কংগ্রেসের সভাপতি ডলকুন ইসা বলেন, আটকের বিষয়ে যে কঠোর অবস্থান রয়েছে তা আমাদের জন্য উদ্বেগের। অন্য বন্দিদেরও মৃত্যু হতে পারে বলে আমরা আশঙ্কা করি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.