ট্রেন সঠিক সময়ে ছাড়ায় স্বস্তি, স্ট্যান্ডিং টিকিটে অস্বস্তি যাত্রীদের

0
122
ট্রেন ধরার জন্য ছুটছেন এই দুই যাত্রী। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন, ২৬ জুন

বেসরকারি সংস্থার কর্মজীবী খন্দকার সাইফুল আলম জামালপুরের জন্য আগেই অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কেটেছেন। স্টেশনে এসেছেন নির্ধারিত সময়ের আড়াই ঘণ্টা আগে। সড়কে ভিড় এড়াতে তিনি সকাল সকাল স্টেশনে বসে আছেন। তিনি বলেন, ‘আগে এলেও চিন্তা নেই। ট্রেন যদি সময়মতো ছাড়ে, তাহলেই হয়। আগের মতো মানুষের হুড়োহুড়ি দেখছি না।’

তবে স্ট্যান্ডিং টিকিটের (দাঁড়িয়ে যাত্রা) যাত্রী বেশি হলে একটু কষ্ট হবে বলেও জানান সাইফুল আলম। আজ মঙ্গলবার ট্রেনে ঈদযাত্রার চতুর্থ দিন। আজ থেকেই ঈদের ছুটি শুরু। গতকাল সোমবার রাত থেকে ট্রেনে যাত্রীর চাপ বেড়েছে। তাই স্ট্যান্ডিং টিকিটের যাত্রীর সংখ্যাও বাড়ছে। অন্য বিষয়গুলো স্বস্তির চোখে দেখলেও অতিরিক্ত যাত্রী নিয়েই অস্বস্তির কথা জানিয়েছেন যাত্রীরা।

আজ সকাল সাড়ে নয়টা পর্যন্ত কমলাপুর থেকে নয়টি ট্রেন ছেড়েছে বলে জানায় রেল বিভাগ। এর মধ্যে দুটি ট্রেন দেরিতে ছেড়েছে। ধূমকেতু এক্সপ্রেস ৪০ মিনিট এবং নীলসাগর এক্সপ্রেস ১ ঘণ্টা ২০ মিনিট দেরি করে ছেড়েছে।

এ বিষয়ে রেলওয়ে ঢাকা বিভাগের বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শাহ আলম কিরণ সাংবাদিকদের জানান, যাত্রী ওঠানামা, কোচ লাগানোয় কিছুটা দেরি হয়েছে।

২৪ জুন থেকে ঈদযাত্রা শুরু হয়েছে। প্রতিটি ট্রেনই সঠিক সময়ে ছেড়ে গেছে। তবে আজ ২৭ তারিখ নিয়ে আগেই ধারণা ছিল যাত্রীর চাপ অনেক বেশি হবে, যা গতকাল রাত থেকেই শুরু হয়েছে।

রেলের সব টিকিট এখন অনলাইনে কাটতে হয়। শুধু স্ট্যান্ডিং টিকিট ২৫ শতাংশ দেওয়া হয় স্টেশনে। কিন্তু এর চেয়ে বেশি যাত্রী চলাচল করেন। এ প্রসঙ্গে শাহ আলম বলেন, যাঁরা টিকিট পাচ্ছেন না, কোনোভাবে প্ল্যাটফর্মে ঢুকে যাচ্ছেন। তাঁদের হয়রানি না করে যাত্রার ব্যবস্থা করা হয়।

সকাল থেকেই কমলাপুরে যাত্রীদের ভিড়। ভৈরব যাওয়ার উদ্দেশ্যে মেয়েকে নিয়ে এসেছেন খাইরুন নাহার। আগেভাগেই এসেছেন। অনলাইনে টিকিট কেটেছেন তিনি। এবার নির্বিঘ্নেই যাত্রা হবে বলে আশা করছেন তিনি।

রংপুর এক্সপ্রেস ছাড়ার সময় ছিল সকাল ৯টা ১০ মিনিটে। প্ল্যাটফর্ম ৩-এ দাঁড়ানো ট্রেনটিতে যাত্রীরা উঠে পড়েন। ৯টা ১৫ মিনিটে রংপুর এক্সপ্রেস চলতে শুরু করলে পেছন পেছন তিনজন যাত্রী দৌড়াতে থাকেন। ইতিমধ্যে ট্রেনটি তাঁদের থেকে কিছুটা দূরেই চলে যায়। প্ল্যাটফর্ম ৪-এ দাঁড়িয়ে শাহীন মোস্তফা নামের আরেক যাত্রী এই দৃশ্য দেখে বললেন, ‘এটাই ঈদযাত্রা।’ শাহীন যাবেন একতা এক্সপ্রেসে। দুই ঈদেই তিনি বাড়ি গিয়ে মা–বাবার সঙ্গে ঈদ করেন।

রেল বিভাগ জানায়, প্রতিদিন ৩৮ জোড়া ট্রেন ঢাকা থেকে ছেড়ে যায়। এর সঙ্গে তিনটি ঈদ স্পেশাল ট্রেন যুক্ত হয়েছে। মেইল, লোকাল ও কমিউটার মিলে ৫২ জোড়া ট্রেন প্রতিদিন ছাড়ছে। এতে প্রতিদিন এক থেকে দেড় লাখ যাত্রী চলাচল করতে পারবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.