স্বাগতিক চট্টগ্রামকে হারিয়ে সাকিবদের দ্বিতীয় জয়

0
73
সাকিবদের দ্বিতীয় জয়

বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ২৬ রানে হারিয়েছে ফরচুন বরিশাল। জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২০২ রান সংগ্রহ করে ফরচুন বরিশাল। ২০৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় স্বাগতিক চট্টগ্রাম।

২০৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ভালো শুরু এনে দেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটার ম্যাক্স ও দাউদ ও উসমান খান। ৫ ওভারে ৪৮ রান তোলে দলটি। তবে ১৯ বলে ৩টি করে চার-ছক্কায় ৩৬ রান করা উসমান বিদায় নিতেই খেই হারিয়ে ফেলে চট্টগ্রাম। ২৯ বলে ২৯ করে সাকিবের শিকার হন আরেক ওপেনার ম্যাক্স ও’দাউদ।

এরপর ভারতীয় উম্মুক্ত চাঁদ ২১ বলে ১৬ রানের ধীরগতির ইনিংস খেলে দলকে আরও বিপদে ফেলে যান। ধীরে ধীরে রান তাড়া থেকে ছিটকে পড়ে চট্টগ্রাম। আফিফের ২৮ আর শেষদিকে জিয়াউর রহমানের ৪৭ রানের ঝড়ো ইনিংসে কেবল পরাজয়ের ব্যবধানটাই কমেছে চট্টগ্রামের। ৪ উইকেটে ১৭৬ রানে থামে স্বাগতিকরা।

এর আগে টস হরে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত শুরু পায় ঢাকা পর্বে দুই ম্যাচের একটিতে জয় পাওয়া বরিশাল। মেহেদি মিরাজ ওপেনিংয়ে নেমে ফিরে যাওয়ার আগে ১২ বলে দুইশ’ স্ট্রাইক রেটে ২৪ রান করেন। দলকে ৩৩ রানের জুটি দিয়ে যান। তিনি তিনটি চার ও একটি ছক্কা তোলেন। তিনে নামা সাকিব আল হাসান (৮) ব্যর্থ হলেও অন্য ওপেনার এনামুল ২১ বলে পাঁচটি চারের শটে ৩০ রানের ইনিংস খেলেন।

এরপর আফগান টপ অর্ডার ব্যাটার ইব্রাহিম জাদরানও রান পান। তিনি ৩৩ বলে ৪৮ রানের ভালো ইনিংস খেলেন। চারটি চার ও তিনটি ছক্কা তোলেন এই ব্যাটার। মাহমুদুল্লাহ পাঁচে নেমে ১৭ বলে দুটি করে চার ও দুই ছক্কায় ২৫ রান করেন। বরিশাল ১৬ ওভারে করেছিল ১৪৪ রান।

ওখান থেকে অসাধারণ এক ইনিংস খেলে দলকে বড় সংগ্রহ এনে দিয়েছেন পাকিস্তানের স্পিন অলরাউন্ডার ইফতিখার আহমেদ। তিনি ২৬ বলে পাঁচটি ছক্কা ও তিনটি চার হাঁকিয়ে ৫৭ রানে অপরাজিত থাকেন। চট্টগ্রামের হয়ে ৩ উইকেট নেওয়া আবু জায়েদ ৪ ওভারে ৪৯ রান দিয়েছেন। মৃত্যুঞ্জয়, তাইজুল, বিজয় কান্ত ও জিয়াউর একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.