লিওনেল মেসি : ‘কেয়ার অব মিয়ামি’

0
120
ইন্টার মিয়ামির জার্সিতে দেখা যাবে মেসিকে

কথায় আছে– যত গর্জে তত বর্ষে না! বার্সার অবস্থা তেমনটাই হয়েছে। লিওনেল মেসি প্যারিসে যাওয়ার পর প্রথম বছর তারা মুখে কুলুপ এঁটেছিল। কিন্তু বছর যেতেই তুলকালামকাণ্ড। ততক্ষণে বার্সায় কোচ হিসেবে আলোর পথ দেখতে পান জাভি হার্নান্দেজ। মেসির একসময়কার বন্ধু-সতীর্থ। জাভি আসার পর মেসিরও আস্থা বাড়ে বার্সার প্রতি।

ফুটবলকে বিদায় বলার আগে আরেকটা বছর তিনি ইউরোপে খেলতে চেয়েছিলেন। আর সেটা বার্সা হলে তো কথাই নেই। তিন দিন আগেও মেসির বাবা হোর্হে মেসি বার্সার প্রেসিডেন্ট লাপোর্তের সঙ্গে মিটিং করে বলেছিলেন, মেসি বার্সাতেই ফিরতে চায়। কিন্তু হলো তার উল্টো। সারা বছর চুপিচুপি মেসির সঙ্গে কথা বলা মিয়ামিকেই বেছে নিলেন পরবর্তী ঠিকানা হিসেবে।

লিওনেল মেসি এবং ইন্টার মিয়ামি ভিন্ন ভিন্ন বার্তায় চুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। কেন মিয়ামি বেছে নিলেন, সৌদি কেন গেলেন না সেই উত্তরও দিয়েছেন মেসি। বার্সা তাকে পুনরায় দলে ভেড়াতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে কিনা তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তর্কসাপেক্ষে সর্বকালের সেরা ফুটবলার খ্যাত এই আর্জেন্টাইন।

কেন বার্সায় ফেরা হলো না: ২০২১ সালে মেসির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করব করব করে শেষমেশ না বলে দিয়েছিল বার্সা। তখন তারা অজুহাত হিসেবে দেখিয়েছিল আর্থিক অসংগতির কারণে মেসিকে রাখা যায়নি। কিন্তু এর পর কী হলো একের পর এক নতুন রিক্রুটমেন্ট। যদিও তাদের সবাইকে রেজিস্ট্রেশন করাতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয় বার্সাকে। পরে আয় বাড়িয়ে ঠিকই নিজেদের মূল দলে নিবন্ধন করায়। বার্সার পরিকল্পনায় এবার ছিলেন জাভি।

প্রায়ই তিনি বলেছেন, তাঁরা মেসিকে ফেরাতে প্রস্তুত কেবল মেসি কী চায় সেটাই জানা দরকার। শেষ মঙ্গলবারও তিনি একই কথা বলেছিলেন। মঙ্গলবার তো লা লিগা অফিসিয়ালি তাদের আর্থিক পরিকল্পনা মেনে নেয়। এর পরই একের পর এক ইতিবাচক খবর। মেসিকে বুধবার আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দেবে বার্সা। কিন্তু তার কিছুই হয়নি।

মেসিকে চুক্তি করে রাখার প্রস্তাব: দ্বিতীয় দফা মিটিং করে ক্লাবের আয়-ব্যয়ের হিসাব মিলিয়ে ফের কঠিন সমীকরণের মুখে পড়ে। এর মধ্যে চার খেলোয়াড় আনসু ফাতি, ফেরান তোরেস, কেসি ও রাফিনিয়াকে বেচতে না পারলে কিছুতেই ২৫০ মিলিয়ন ইউরোর গরমিল ঠিক করা যাবে না। একাধিক রিপোর্ট জানিয়েছে, এই চারজনের কেউই বার্সা ছাড়তে চাচ্ছেন না। যে কারণে বার্সা মেসির থেকে সময় চেয়েছিল। তারা মুখে মুখে মেসিকে বলেছিল, আপাতত চুক্তি সই করতে। পরে অবশ্যই তাঁকে রেজিস্ট্রেশন করাবে।

ঝুলে থাকতে চাননি মেসি: চুক্তি সম্পন্ন করলেও পরে রেজিস্ট্রেশন নিয়ে বেকায়দায় পড়ার সম্ভাবনা ছিল বার্সার। এমন অনিশ্চয়তা নিয়ে তাই এগোতে চাননি মেসি। বার্সাকে বলে দেন তিনি আর ফিরবেন না! কেন পারেনি বার্সেলোনা লা লিগার সঙ্গে মিটিং করে আর্থিক পরিকল্পনা পাস করে নেয় বার্সা। সেই মিটিংয়ে কাতালানরা বলেছিল, চারজন খেলোয়াড় বেচে বেতন বাবদ বাড়তি খরচটা কাটছাঁট করবে। তেমনটা হলে মেসিকে ফেরাতেই পারত দলটি। কিন্তু খেলোয়াড় বেচাটা চাট্টিখানি কথা নয়।

ফাতি-রাফিনিয়ারা বার্সা ছাড়তে নারাজ: স্প্যানিশ দৈনিকগুলো বলছে, যে চারজনকে (ফাতি, তোরেস, কেসি ও রাফিনিয়া) টার্গেট করেছিল বার্সা, তাঁদের কেউই ক্যাম্প ন্যু ছাড়তে রাজি নন। সেজন্য বার্সার কর্তারা মেসির কাছে সময় চেয়েছিলেন। এমনকি তাঁকে চুক্তি সই করতেও বলেছিলেন। কিন্তু মেসি অনিশ্চয়তার হাতে নিজেকে সঁপে দিতে চাননি। কারণ, বার্সাতে গেলে তাঁকে ক্লাবটি রেজিস্ট্রেশন করাতে পারে কিনা সেটা নিশ্চিত না। আগেও তাদের খেলোয়াড়দের ভুগতে হয়েছে এমন সমস্যায়। হয়তো অতীত থেকে শিক্ষা নিয়েছেন মেসিও।

আল হিলালকে না বলার কারণ: দুই বছরের জন্য ১ বিলিয়ন ইউরোর বেশি দিতে চেয়েছিল সৌদির আল হিলাল। কিন্তু মেসি তাদের বছরখানেক অপেক্ষা করতে বলেন। তারা যেটা ইতিবাচকভাবে নেয়নি। শেষ পর্যন্ত না বলে দেন তিনি। মূলত মেসির স্ত্রী রোকোজ্জু রাজি ছিলেন না। তাছাড়া লিও নিজেও সৌদির লাইফস্টাইলকে সেভাবে পছন্দ করতেন না।

মিয়ামিতে চুক্তির মেয়াদ: ইন্টার মিয়ামির সঙ্গে দুই বছরের চুক্তি করেছেন লিওনেল মেসি। দুই বছরের সঙ্গে ঐচ্ছিক এক বছর আছে। অর্থাৎ দুই মৌসুম শেষে এক বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করতে পারবেন তিনি। তেমনটা হলে যুক্তরাষ্ট্রে ২০২৬ বিশ্বকাপ খেলে অবসরে যাবেন লিও। আবার উপভোগ না করলে কিংবা ইনজুরি, ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কারণে এক মৌসুম পরেই চুক্তি বাতিল করতে পারবেন তিনি।

যে সুযোগ সুবিধা পাবেন মেসি: ইন্টার মায়ামি থেকে মৌসুমে মেসি কত বেতন পাবেন তা জানানো হয়নি। কিছু সংবাদ মাধ্যম দাবি করেছে, মৌসুমে তার বেতন হবে ১০০ মিলিয়ন ইউরো। কাছাকাছি বেতন তিনি পিএসজিতেই পেতেন। তবে তার চুক্তিতে অ্যাপল এবং অ্যাডিডাসের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার স্বত্ব আছে। যেখান থেকে তিনি মোটা অঙ্কের অর্থ আয় করবেন। যুক্তরাষ্ট্রের লিগের লাইভ স্ট্রিমিং স্বত্ব নিয়েছে অ্যাপল টিভি। মেসি তাদের ভিউ বাড়াবে। এছাড়া ক্যারিয়ার শেষে মেসি চাইলে ইন্টার মিয়ামির অংশ কিনে মালিক হতে পারবেন; এমন শর্তও আছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.