ব্রাজিলের জয়ে গভীর রাতে ঢাবিতে বাধভাঙা উচ্ছ্বাস সমর্থকদের

0
29
সার্বিয়ার বিপক্ষে ব্রাজিলের জয়ে দলটির সমর্থকেরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বাধভাঙা উচ্ছ্বাসে মাতেন

ব্রাজিল ও সার্বিয়ার খেলা শুরু হয় রাত একটায়। শেষ হয় রাত তিনটার দিকে। ম্যাচের প্রথমার্ধ ছিল গোলশূন্য। দুই দলই এ সময় আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ করে। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের খেলা বেশির ভাগই ছিল ব্রাজিলের নিয়ন্ত্রণে। শেষ পর্যন্ত দুটি গোলের দেখা পায় ব্রাজিল।

বিশ্বকাপ ফুটবলের খেলা দেখার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় দুটি ও হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের মাঠে একটি ডিজিটাল স্ক্রিন বসানো হয়েছে। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল ও তার আশপাশে রয়েছে খেলা দেখার ব্যবস্থা।

ব্রাজিল ও সার্বিয়ার মধ্যকার ম্যাচ দেখতে গতকাল রাতে ক্যাম্পাসের এসব স্থানে হাজারো দর্শকের সমাগম ঘটে। তাঁদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থী ছাড়াও ছিলেন ঢাকার বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

ব্রাজিল-সার্বিয়া ম্যাচ শুরুর আগেই টিএসসি এলাকায় ভুভুজেলা বাঁশি বাজাতে শুরু করেন ব্রাজিল-সমর্থকেরা। অবশ্য খেলার প্রথমার্ধে সার্বিয়া যখন ব্রাজিলের জালে বল পাঠানোর চেষ্টা করছিল, তখন আর্জেন্টিনাসহ অন্য দলের সমর্থকেরা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। সার্বিয়ার সমর্থনে তাঁরা হাততালি ও হর্ষধ্বনি দিচ্ছিলেন।

কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে চিত্রটা ছিল প্রায় উল্টো। এ সময় ব্রাজিল যখন একের পর এক আক্রমণ করছিল, তখন অন্য দলের সমর্থকেরা চুপ ছিলেন। ব্রাজিলের গোলের পর তাঁরা আরও চুপসে যান। অন্যদিকে, ব্রাজিল সমর্থকেরা হাততালি, হর্ষধ্বনি ও ভুভুজেলা বাজিয়ে পুরো এলাকা মাতিয়ে রাখেন।

খেলা শেষে টিএসসির ডিজিটাল স্ক্রিনের সামনে শুরু হয় ব্রাজিল-সমর্থকদের তুমুল নাচ। সেখানে অন্য দলের সমর্থকদের সঙ্গে মজা করতে দেখা যায় ব্রাজিল-সমর্থকদের। বেড়ে যায় ভুভুজেলার শব্দ।

ব্রাজিল সমর্থকদের আরেকটি অংশ রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নিয়ে উল্লাস করেন। টিএসসি ও তার আশপাশের সড়কে ব্রাজিলের পতাকা নিয়ে মোটরসাইকেলের শোভাযাত্রা করেন ব্রাজিলের একদল সমর্থক। ঘণ্টাখানেক ধরে এই উদ্‌যাপন চলে।

স্যার এ এফ রহমান হলের সামনে আর্জেন্টিনার সমর্থকদের মধ্যে খেজুর বিতরণ করেন ব্রাজিল-সমর্থকেরা। এর কারণ হিসেবে তাঁরা জানান, বিশ্বের অন্যতম খেজুর রপ্তানিকারক দেশ সৌদি আরবের সঙ্গে আর্জেন্টিনা ২-১ গোলে পরাজিত হওয়ায় তাঁরা মজা করে দলটির সমর্থকদের খেজুর খাওয়াতে চেয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.