দুর্নীতি বাণিজ্যকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিল বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

0
403
জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী রচিত 'প্রসঙ্গ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও মুক্তিযুদ্ধে মুজিব বাহিনী' এবং নূর-উন-নাহার মেরী রচিত 'আমার চেতনায় বিশ্বনেতা বঙ্গবন্ধু' গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসবে অতিথিরা ।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘হাওয়া ভবন প্রতিষ্ঠা করে দুর্নীতি ও কমিশন বাণিজ্যকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিল বিএনপি। আর এর হোতা ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, যার ওপর দুর্নীতি ও গ্রেনেড হামলার দায়ে আদালতের সাজা বলবৎ রয়েছে।’

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী রচিত ‘প্রসঙ্গ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও মুক্তিযুদ্ধে মুজিব বাহিনী’ এবং নূর-উন-নাহার মেরী রচিত ‘আমার চেতনায় বিশ্বনেতা বঙ্গবন্ধু’ গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সমসাময়িক রাজনীতি প্রসঙ্গে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছেন’ উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ছোটখাটো যে কোনো দুর্নীতির বিরুদ্ধে দলমত নির্বিশেষে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। যুবদল নেতা যেমন গ্রেফতার হয়েছেন, তেমনি যুবলীগ নেতাও গ্রেফতার হয়েছেন। এজন্য প্রধানমন্ত্রীকে বিএনপির অভিনন্দন জানানো উচিত।’

তিনি বলেন, “তারেক রহামান হাওয়া ভবন প্রতিষ্ঠা করে রাষ্ট্রীয় সকল কাজ থেকে ‘টেন পার্সেন্ট’ নিয়ে দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিলেন। বেগম জিয়া ও তার অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান কালো টাকা সাদা করে দেশকে পরপর পাঁচবার দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করেছেন, চারবার একক ও একবার আফ্রিকার একটি দেশের সঙ্গে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন। এসব কারণে বিএনপির মুখে দুর্নীতিবিরোধী কথা তো মানায়ই না, বরং তাদের লাগামহীন দুর্নীতির জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত।”

তথ্যমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বের সর্বোচ্চ ‘জিডিপি প্রবৃদ্ধি’ অর্জনকারী বাংলাদেশের বিস্ময়কর উন্নয়নের প্রশংসা সারাবিশ্ব করলেও বিএনপি ও তার দোসররা প্রশংসা করতে পারেন না। দেশ আজ সমস্ত সূচকে পাকিস্তানকে, অনেক সূচকে ভারতকেও পেছনে ফেলে এগিয়ে গেছে। এটা তাদের ভালো লাগে না। তারা দোষ খুঁজে বেড়ায়।

তথ্যমন্ত্রী এ সময় সদ্য প্রকাশিত গ্রন্থদ্বয়ের লেখকদের অভিনন্দন জানান এবং লেখনীকে মৃত্যুর পর বেঁচে থাকার উৎকৃষ্ট মাধ্যম হিসেবে বর্ণনা করেন।

সাবেক তথ্যসচিব সৈয়দ মার্গুব মোরশেদের সভাপতিত্বে লেখকদ্বয়, আওয়ামী মহিলা লীগের দপ্তর সম্পাদক রোজিনা নাসরিন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা, গ্রন্থদ্বয়ের প্রকাশক অমর প্রকাশনীর সত্ত্বাধিকারী অমর হাওলাদার, সাংবাদিক মানিক লাল ঘোষ, অভি চৌধুরী, উদ্যোক্তা লায়ন আবুল বাশার প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে