তুরস্কের নির্বাচনে ব্যালট বাক্সে অনিয়মের অভিযোগ বিরোধীদের

0
131
তুরস্কে ১৪ মে প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়

তুরস্কের প্রধান বিরোধী দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টি (সিএইচপি) বলেছে, তুরস্কে ১৪ মে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে হাজারো ব্যালট বাক্সে অনিয়ম হয়েছে। ইতিমধ্যে এ নিয়ে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করেছে তারা।

ধর্মনিরপেক্ষ দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টির (সিএইচপি) ডেপুটি চেয়ারম্যান মুহাররেম এরকেক বলেন, প্রতিটি ব্যালট বাক্সের ক্ষেত্রেই কোনো না কোনো অনিয়ম দেখা গেছে। কোথাও হয়তো একটি ভোট গুনতে ভুল হয়েছে, আবার কোথাও শত শত ভোট গুনতে ভুল হয়েছে।

মুহাররেম আরও বলেন, গত রোববারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দেশজুড়ে ব্যবহৃত ২ হাজার ২৬৯টির বেশি ব্যালট বাক্সে অনিয়মের অভিযোগ তুলেছে সিএইচপি। একই দিনে পার্লামেন্ট নির্বাচনে ব্যবহৃত ৪ হাজার ৮২৫টি ব্যালট বাক্সেও অনিয়ম হয়েছে।

তুরস্কের প্রথম দফার নির্বাচনে কোনো প্রার্থী এককভাবে ৫০ শতাংশ ভোট না পাওয়ায় ২৮ মে দ্বিতীয় দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দফার নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান সামান্য এগিয়ে আছেন। ৫০ শতাংশ থেকে সামান্য কিছু কম ভোট পেয়েছেন তিনি।

সিএইচপির প্রধান কেমার কিলিচদারওলু ৪৪ দশমিক ৯ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। আর নির্বাচনের ফলাফলে তৃতীয় অবস্থানে প্রার্থী সিনান ওগান পেয়েছেন ৫ দশমিক ১৭ শতাংশ ভোট।

এরকেক বলেন, নির্বাচনের জন্য তুরস্কে এবং দেশটির বাইরে ২ লাখ ১ হাজার ৮০৭টি ব্যালট বাক্স ব্যবহার করা হয়েছে।

এরকেকের তথ্যানুযায়ী, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফলকে চ্যালেঞ্জ করার সময়সীমা গত সোমবার শেষ হয়েছে। আর পার্লামেন্ট নির্বাচনের ফল নিয়ে চ্যালেঞ্জ জানানোর সময়সীমা শেষ হয়েছে গত মঙ্গলবার।

এরকেক বলেছেন, এসব সময়সীমার মধ্যেই সিএইচপি তাদের সব কটি আবেদন জানিয়েছে।

সিএইচপিসহ বিরোধী জোট তরুণ ভোটারদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছে, তাঁরা যেন দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে কিলিচদারওলুকে সমর্থন দেন।

আর এরদোয়ান প্রচার চালাচ্ছেন, একমাত্র তিনিই ন্যাটোর সদস্যদেশ তুরস্কে স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে পারেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.