জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদে ‘সর্বাধিক ভোটে’ জিতল বাংলাদেশ

0
68
জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ।

এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ। আগামী ২০২৩ থেকে ২০২৫ সাল পর্যন্ত এ পরিষদের সদস্য পদ নির্বাচনের মাধ্যমে অর্জন করেছে ঢাকা। এবারের ভোটে ১৬০ ভোট পেয়েছে বাংলাদেশ।

আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় রাতে যুক্তরাষ্ট্রে জাতিসংঘের কার্যালয়ে ১৪টি শূন্য আসন পূরণের জন্য গোপন ব্যালটে মানবাধিকার পর্ষদের ভোট হয়। এবারে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের চারটি আসনের বিপরীতে আরও অন্যান্য নির্বাচিত দেশগুলো হলো- মালদ্বীপ, ভিয়েতনাম এবং কিরগিজস্তান। মালদ্বীপ ১৫৪, ভিয়েতনাম ১৪৫ এবং কিরগিজস্তান ১২৬ ভোট পেয়ে জয় পেয়েছে। এছাড়া দক্ষিণ কোরিয়া ১২৩, আফগানিস্তান ১২,  বাহরাইন ১ এবং মঙ্গোলিয়া ১ ভোট পেয়েছে। নির্বাচনে মোট ভোট ছিল ১৯০টি। এর মধ্যে ভোট বাতিল হয়েছে একটি।

এর আগে ২০১৮ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের পর্ষদের সদস্য পদে নির্বাচন করেছিল বাংলাদেশ। সে সময়ে ১৭৭টি ভোট পেয়ে বাংলাদেশ জয় পেয়েছিল।

জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের মোট সদস্য পদ ৪৭টি। বছরের শেষের দিকে সংগঠনের এক-তৃতীয়াংশ আসনে ভোট হয়। সর্বোচ্চ ১৮ আসনে নির্বাচনের মাধ্যমে পাঁচটি আঞ্চলিক গ্রুপ থেকে এ পরিষদে সদস্য নির্বাচিত হয়। নির্বাচনের মাধ্যমে একটি দেশ পরপর দুবার টানা ছয় বছর সদস্য হয়ে কাজ করতে পারে। বাংলাদেশ মানবাধিকার কাউন্সিলে ২০২১ সাল পর্যন্ত টানা ৬ বছর সদস্য হিসেবে কাজ করেছে। নিয়ম অনুযায়ী ২০২২ সাল ছাড় দিয়ে ২০২৩-২৫ এই তিন বছরের মেয়াদে সদস্য পদ পেয়েছে ঢাকা।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, এটি বাংলাদেশের জন্য একটি বড় বিজয়। মানবাধিকার বিষয়ে বিশ্ব বাংলাদেশের ওপর আস্থা রাখে, এ জয়ের মাধ্যমে এটাই প্রতিফলিত হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.