গাজায় লাগাতার বিমান হামলা, নিহত বেড়ে ১১৯

0
46
ইসরায়েলের হামলায় নিহত এক ফিলিস্তিনি শিশুর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হচ্ছে-আল জাজিরার

গাজায় আরও বিমান হামলার পাশাপাশি কামান থেকে গোলাবর্ষণ শুরু করেছে ইসরায়েল, অপরদিকে ফিলিস্তিন ইসরায়েলের বাণিজ্যিক রাজধানী তেল আবিবে রকেট হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

শুক্রবার পঞ্চম দিনে বিমান হামলার পাশাপাশি স্থল বাহিনীও হামলায় অংশ নিচ্ছে বলে জানিয়েছে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ। গানবোট, যুদ্ধবিমান এবং হেলিকপ্টার ব্যবহার গাজায় বোমা বর্ষণ করা হচ্ছে। খবর আল জাজিরার

গত সোমবার থেকে ইসরায়েল ও গাজার হামাস বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ তীব্র রূপ নিয়েছে। ২০১৪ সালের গাজা যুদ্ধের পর ইসরায়েল ও হামাসের একে অপরের বিরুদ্ধে এটিই সবচেয়ে বড় আক্রমণের ঘটনা।

এই হামলায় এখন পর্যন্ত ১১৯ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে শিশু ৩১ জন। এছাড়া ইসরায়েলের হামলায় আহত হয়েছে আরও ৮৩০ জন। ফিলিস্তিনিদের পাল্টা প্রতিরোধে ছয় ইসরায়েলি নিহত হয়েছে।

শুক্রবার ভোরে গাজার উত্তরাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চল কামানের গোলা ও বিস্ফোরণের শব্দে প্রকম্পিত হচ্ছিল। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সীমান্তের কাছে বসবাস করা বহু পরিবার তাদের বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়া শুরু করেছে, অনেকে জাতিসংঘ পরিচালিত স্কুলগুলোতে আশ্রয় প্রার্থনা করেছেন।

গাজার পাশাপাশি ইসরায়েলের আরব ও ইহুদি অধ্যুষিত শহরগুলোতেও সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে ইসরায়েলি-ফিলিস্তিনি সংঘাতের একটি নতুন ক্ষেত্রে হয়ে উঠেছে। বেশ কয়েকটি শহরে ইহুদিদের সিন্যাগগ পুড়িয়ে দিয়েছে আরবরা এবং রাস্তায় রাস্তায় দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি চলছে, এ পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্ন ইসরায়েলের প্রেসিডেন্ট গৃহযুদ্ধ শুরু হয়ে যেতে পারে বলে সতর্ক করেছেন।

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্তজ বলেছেন, অভ্যন্তরীণ বিশৃঙ্খলা এড়ানোর নির্দেশ দিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে চার শতাধিক মানুষকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে