২৭ গোলে জিতেও কোচ ছাঁটাই ইতালিতে

0
169
ছবি: এএফপি

আর দশটা ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও নিজের কিশোর খেলোয়াড়দের কানে জয়ের মন্ত্রণা পড়ে দিয়েছিলেন ইতালির যুব ক্লাব ইনভিক্টাসরোর কোচ মাসিমিলিয়ানো রিক্কিনি। সে মন্ত্রণায় এতটাই কাজ হয়েছে, তাঁর দলের ছেলেরা প্রতিপক্ষ মারিনা ক্যালসিওকে হারিয়েছে ২৭-০ গোলে। কিন্তু এই বিশাল জয়ের পরেও যে ছাঁটাই হতে হবে, সেটা বোধ হয় রিক্কিনি কস্মিনকালেও ভাবেননি!

অথচ সেটিই হয়েছে। আর এর পেছনে কারণও দেখিয়েছে ইনভিক্টাসরো।

যুবদলে একজন কিশোরকে শুধু ফুটবল খেলা আর তাঁর আনুষঙ্গিক কারিকুরি কিংবা কৌশলগত শিক্ষাই দেওয়া হয় না, নীতি-নৈতিকতার শিক্ষাও দেওয়া হয়। পারস্পরিক শ্রদ্ধা, সম্মানবোধ— এসব জিনিসও শিখে থাকে একজন কিশোর। ইনভিক্টাসরোর মনে হয়েছে, প্রতিপক্ষ মারিনা ক্যালসিওকে ২৭-০ গোলে হারানোর মাধ্যমে তাদের অসম্মান করা হয়েছে। এবং এ জন্য দায়ী কোচ রিক্কিনি। যেটি কাম্য নয় ক্লাবের প্রশাসকদের কাছে।

ইনভিক্টাসরো সভাপতি মনে করেন, যেখানে কিশোররা দেখলই, মারিনার গোল করার সামর্থ্য নেই, সেখানে একটা ভালো ব্যবধানে এগিয়ে থাকার পরে তাদের গোল করা থামান উচিত ছিল। মারিনা ক্যালসিওর কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি, ‘আমরা যখন শুনলাম যে আমাদের যুবদল মারিনা ক্যালসিওকে ২৭-০ গোলে হারিয়েছে, ভালো লাগেনি আমাদের। আমরা ভীষণভাবে ক্ষমাপ্রার্থী। যুব ফুটবলের মূল্যবোধের সঙ্গে এ জিনিসটা যায় না। প্রতিপক্ষকে অবশ্যই সম্মান জানান দরকার, যেটা আজ আমাদের যুবদল দেখায়নি। সভাপতি হিসেবে আমি মারিনা ক্যালসিওর কাছে ক্ষমা চাইছি। এ কারণে আমি ও আমাদের ক্লাবের পরিচালকেরা কোচ মাসিমিলিয়ানো রিক্কিনিকে ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

কোচের প্রতিও তোপ দেগেছেন সভাপতি পাওলো ব্রোগেলি, ‘আমাদের কোচদের দায়িত্ব খেলোয়াড়দের অনুশীলন করানো। তবে তাদের সবচেয়ে বড় দায়িত্ব কিশোরদের নৈতিকতার শিক্ষায় শিক্ষিত করা। যার প্রতিফলন আজ দেখা যায়নি।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে