২০২৫ সালের পর দেশে ইটভাটা থাকবে না: তাজুল ইসলাম

0
232
স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম

২০২৫ সালের পর দেশে কোনো ইটভাটা থাকবে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘নগরীতে ধুলোবালির বর্তমান অবস্থায় আমরা উদ্বিগ্ন। বিশ্বের সব দেশেই নির্মাণ কাজ হয়। কিন্তু বাংলাদেশের মতো এমন অবস্থা থাকে না। সবাইকে সচেতন হতে হবে। ধুলোবালি পরিস্কার করার জন্য আধুনিক গাড়ি কিনতে সিটি করপোরেশনকে প্রয়োজনে সহযোগিতা করবে মন্ত্রণালয়। ২০২৫ সালের পর দেশে কোনো ইটভাটা থাকবে না।’

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। ধুলোবালিমুক্ত পরিচ্ছন্ন মহানগরী নিশ্চিত করার বিষয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় পরিবেশ দূষণ রোধে বিভিন্ন বিষয় পর্যবেক্ষণ ও করণীয় নির্ধারণে স্থানীয় সরকার বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিবকে প্রধান করে একটি কমিটি করার নির্দেশ দেন মন্ত্রী। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনসহ গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ সিটির প্রতিনিধিরা থাকবেন এ কমিটিতে। একই সঙ্গে পরিবেশ ও বন, স্বরাষ্ট্র ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব, রাজউকের প্রতিনিধি, সড়ক ও মহাসড়ক অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, ওয়াসার প্রতিনিধিদের নিয়ে এ কমিটি গঠন করা হবে।

সভায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলাল উদ্দিনসহ বিভিন্ন সেবা সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন-ডিএনসিসির মেয়র আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ২২ ডিসেম্বর থেকে বায়ুদূষণকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া শুরু হবে। এ মুহূর্তে দেখা যাচ্ছে, রোগী মারা যাচ্ছে। কাজেই কোরামিন ইনজেকশন দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, যে কনস্ট্রাকশন কোম্পানি কমপ্লায়েন্স মেইনটেন না করে কাজ করবে হয় তার ব্যবসা বন্ধ করতে হবে, না হয় জরিমানা দিতে হবে। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, ‘মেট্রো রেলের কন্ট্রাকটর ব্যবসা করছে পয়সা বানানোর জন্য। সে জনগণকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছে, তাদের জরিমানা করার জন্য আমরা কাজ করছি। ডিএনসিসির যে কয়জন ম্যাজিস্ট্রেট আছেন ২২ ডিসেম্বর থেকে তারা মোবাইল কোর্ট চালাবেন।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে