১০ লাখে বিক্রি সুমীর নথ, ইমনের মেন্ডোলিন আর পাভেলের ড্রামস

0
118
সুমীর নথ, ইমনের মেন্ডোলিন আর পাভেলের ড্রামস কিট নিলামে উঠছিলে। ছবি: সংগৃহীত

গান দিয়ে মানুষের মন জয় করা ব্যান্ড চিরকুটের সদস্যরা এগিয়ে এসেছেন অসহায় ও অসচ্ছল মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে। করোনার সংক্রমণে দেশে সংকটে পড়া মানুষের সাহায্যের জন্য তহবিল সংগ্রহ করতে তাঁরা নিজেদের ব্যবহৃত প্রিয় তিনটি জিনিস নিলামে তোলেন। বুধবার দিবাগত রাতে চিরকুট ব্যান্ডের তিন সদস্যের ব্যবহার করা জিনিসগুলো ১০ লাখ টাকায় নিলামে জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী জায়েদি সজীবের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান।

চিরকুটের তিন সদস্য সুমীর নথ, ইমনের মেন্ডোলিন আর পাভেলের ড্রামস কিট— এই তিনটি প্রিয় জিনিস নিলামে উঠছিল। করোনাভাইরাসে যে অসহায় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তাতে সহযোগী হতে তহবিল সংগ্রহে নামতেই এই নিলামের আয়োজন। নিলামে তিনটি জিনিসের ভিত্তিমূল্য ধরা হয় তিন লাখ টাকা।

চিরকুট সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিকভাবে তাঁরা ভেবেছেন, নিলামের টাকায় প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা করে ২০ পরিবারের ৫ মাসের খাবারের জোগান দেওয়া হবে।

জানা গেছে, সুমীর নথটি তিনি ২০১৬ সালে কিনেছিলেন। শখের এই নথ পরে কনসার্ট ও টেলিভিশনের অনুষ্ঠানে হাজির হন তিনি। স্কটল্যান্ড থেকে আনা পাভেল আরীনের কাস্টম মেইড ড্রামস কিট। ইমনের প্রিয় মেন্ডোলিন, যা দিয়ে ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার ‘না বুঝি দুনিয়া’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গান করেছেন এবং গত ৫ বছরে দেশ-বিদেশের অসংখ্য কনসার্টে বাজিয়েছেন।

গান দিয়ে মানুষের মন জয় করা ব্যান্ড চিরকুটের সদস্যরা। ছবি: সংগৃহীত

সুমীর নথ এখন ভক্তদের পাশাপাশি বন্ধু, শুভাকাঙ্ক্ষী আর আত্মীয়স্বজনের কাছেও বেশ পরিচিতি। তাই উপহারের প্রসঙ্গ এলেই নাকি নথ প্রাধান্য পায়। সুমী জানালেন, এখন তাঁর সংগ্রহে অনেক নথ আছে। সুমী তাঁর কেনা নথটি নিলামে তুলছেন। বললেন, ‌‘এটা শুধু একটি নথ নয়, আমার ভীষণ আবেগ ও ভালোবাসার বস্তু। নিলামের বিষয়টি যখন এল, তখন ভাবলাম প্রিয় জিনিসটাই হাতছাড়া করি, যা আমি বেশ যত্নে রেখেছি।’

সুমী জানান, চিরকুটের অন্য দুই সদস্য ইমনের ম্যান্ডোলিন ও পাভেলের ড্রামস কিট দুটি দুজনের ভীষণ পছন্দের, যা তাঁরা নিলামে তুলছেন।

১০ লাখ টাকায় তিনটি জিনিস নিলাম হওয়াতে আনন্দিত সুমী। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় প্রথম আলোকে তিনি বলেন, ‘একটি মহৎ উদ্যোগে চিরকুট থাকতে পেরেছে, এটা ভীষণ আনন্দের ও গর্বের। আমাদের ব্যান্ড সদস্যদের খুব প্রিয় জিনিসগুলোর নিলামের অর্থে কিছু পরিবারের মুখে হাসি ফুটবে, এটা ভাবতেই ভালো লাগছে।’

চিরকুট ব্যান্ডের ড্রামার ও সাউন্ড প্রোডিউসার পাভেল আরীন বলেন, ‘আমরা ব্যান্ড হিসেবে কত বড় কিংবা কত জনপ্রিয়, তা নিয়ে মোটে ভাবছি না। আমরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাচ্ছি, সুন্দর কথা ও চমৎকার সুর ও নতুন সাউন্ডের সঙ্গে শ্রোতাদের পরিচয় করিয়ে দিতে। সেই আমরা যখন করোনাভাইরাস সংক্রমণের এই সময়টায় কীভাবে মানুষের পাশে থাকা যায় ভাবছিলাম, এমন সময় এই আয়োজন আমাদের সেই ভাবনাকে এগিয়ে নিয়ে গেছে। আমরা আমাদের সদস্যদের প্রিয় কিছু জিনিস হাতছাড়া করার মধ্য দিয়ে দেশের কিছু পরিবারের মুখে কিছুটা দিন হাসি ফোটাতে পারব, এর চেয়ে সুন্দর অনুভূতি আর হতে পারে বলে মনে হয় না। আমাদের প্রতিটা সদস্য ভীষণ আনন্দিত।’

করোনার তহবিল সংগ্রহের আয়োজন করছে অকশন ফর অ্যাকশন নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এরই মধ্যে সংগঠনটি হুমায়ুন ফরীদি, তাহসান ও সাকিব আল হাসানের প্রিয় জিনিস নিলামে তুলেছে।

 

‘অকশন ফর অ্যাকশন’ ফেসবুক পেজ থেকে গতকাল রাতের এই নিলাম কার্যক্রমের লাইভ আয়োজনটি ছিল দারুণ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে