১০টার মধ্যে ঘুমাতে যাওয়ার চিঠি, ২ ব্যাংক কর্মকর্তাকে শোকজ

0
38
রূপালী ব্যাংক

গতকাল মঙ্গলবার কাশিয়ানী উপজেলার জয়নগর শাখার ব্যবস্থাপক মো. মফিজুর রহমানের নামে জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলামকে ওই চিঠি দেওয়া হয়। চিঠিটি পাঠিয়েছেন শহীদুল ইসলামের সহকর্মী ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা স্বপন সিকদার। মজা করে পাঠানো ওই চিঠিতে ব্যাংকের সিল ও ব্যবস্থাপকের নাম ব্যবহার করায় তাঁদের দুজনকে শোকজ করা হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে তাঁদের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

শাখা ব্যবস্থাপক মো. মফিজুর রহমান বলেন, ব্যাংকের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা স্বপন মজা করে শহীদুলকে ওই চিঠিটি পাঠিয়েছেন। তাঁরা দুজন ব্যাচমেট এবং ব্যাংকের পাশে একই বাসায় থাকেন। নতুন কর্মকর্তা হওয়ায় তাঁরা বুঝেশুনে এ কাজ করেননি। চিঠিটি লিখে তাঁদের নিজস্ব মেসেঞ্জার গ্রুপে দিয়েছেন। সেখান থেকে চিঠিটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানতেন না।

মজা করে পাঠানো চিঠির ছবি

মজা করে পাঠানো চিঠির ছবি
ছবি: সংগৃহীত

মফিজুর রহমান আরও বলেন, ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক গোল সিল ব্যবহার করেন না। তা ছাড়া ওই স্বাক্ষর তাঁর নয়। শাখা ব্যবস্থাপকের বরাত দিয়ে লেখা ও ব্যাংকের সিল ব্যবহার করায় শহীদুল ও স্বপনকে শোকজ করা হয়েছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে তাঁদের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

মজা করে পাঠানো ওই চিঠিতে বলা হয়, ‘উপর্যুক্ত বিষয় এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের স্মারক নম্বর ডিওএস–৩১ অনুসারে জনাব মো. শহীদুল ইসলাম, সিনিয়র অফিসারকে এই মর্মে জানানো যাচ্ছে যে ব্যাংকিং কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য আপনাকে সকাল ৯ ঘটিকায় কর্মস্থলে উপস্থিত হওয়ার সুবিধার্থে রাত ১০ ঘটিকার মধ্যে ঘুমিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা প্রদান করা হলো।’

এ বিষয়ে জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, ‘আমার বন্ধু ও ব্যাচমেট মজা করে আমাকে ওই চিঠিটি দিয়েছিলেন। কৌতূহলবশত চিঠির একটি ছবি আমাদের মেসেঞ্জার গ্রুপে দিয়েছিলাম। পরে অবশ্য সেটি মুছে ফেলি। কিন্তু কেউ একজন সেটি ডাউনলোড করে ফেসবুকে দিয়েছে।’ তিনি বলেন, এ জন্য ব্যাংক থেকে শোকজ করা হয়েছে। তাঁরা শোকজের জবাব লিখে রেখেছেন। পরবর্তী কার্যদিবসে জমা দেবেন।

তবে চিঠি পাঠানো ব্যাংক কর্মকর্তা স্বপন সিকদারের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাঁর সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.