হ্যাটট্রিকের কৃতিত্ব কোহলিকে দিলেন বুমরাহ

0
373
বুমরাহ। ছবি: এএফপি

হানুমা বিরাহির প্রথম সেঞ্চুরিতে ৪১৬ রানের বড় সংগ্রহ পায় ভারত। এছাড়া দলের হয়ে বিরাট কোহলি, মায়াঙ্ক আগারওয়াল এবং ইশান্ত শর্মা ফিফটি তুলে নেন। কিন্তু তাদের ব্যাটিং ছাড়িয়ে গেছে বুমরাহর বোলিং। ভারতীয় পেসারের এক ঝলকে ৮৭ রানেই ৭ উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এর মধ্যে বুমরাহ নিয়েছেন ৬ উইকেট। তৃতীয় ভারতীয় হিসেবে টেস্টে করেছেন হ্যাটট্রিক।

নিজের নবম ওভারে এসে ড্যারেন ব্রাভো এবং সামার ব্রুককে আউট করেন বুমরাহ। ব্রাভো ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। ব্রুক লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন। হ্যাটট্রিক বলে আবার এলবিডব্লিউয়ের আবেদন করেন বুমরাহ। তবে আম্পায়ার নাকচ করে দেন। বুমরাহ রিভিউ নেওয়ার মতো জোর পাচ্ছিলেন না। কিন্তু তৃতীয় স্লিগে থাকা ভারতীয় অধিনায়ক এগিয়ে আসেন। বুমরাহকে জিগেস করেন, বল আগে প্যাডে লেগেছে কি-না। ভারতীয় পেসারের সঙ্গে কথা বলেই রিভিউ নেন ভারতীয় অধিনায়ক। সফলও হন। বুমরাহ নিজের ১২তম টেস্টে এসে পেয়ে যায় হ্যাটট্রিকের দেখা।

হরভজন সিং (২০০১, অস্ট্রেলিয়া) ও ইরফান পাঠানের (২০০৫, পাকিস্তান) পরে তৃতীয় ভারতীয় হিসেবে টেস্টে হ্যাটট্রিক পাওয়া বুমরাহ কৃতিত্ব দিলেন কোহলিকে। তিনি বলেন, ‘আউট হবে কি-না জানতাম না। ভেবেছিলাম প্রথমে ব্যাটে বল লেগেছে। সেজন্য জোরে আবেদনও করিনি। কিন্তু ওই দিক থেকে দারুণ রিভিউ হয়েছে। আমি মনে করি অধিনায়কের জন্যই হ্যাটট্রিক পেয়েছি।’

রিভিউ নিয়ে ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা রিভিউ নেওয়ার আগে আলাপ করেছি। বল ব্যাটে লেগেছে কি-না বুমরাহ নিশ্চিত ছিল না। তখন একটা বিষয়ই জানার ছিল বল উইকেটের লাইনে ছিল কি-না। বুমরাহ জানায়, বল স্টাম্পের লাইনেই ছিল। ব্যাটসম্যান লাইনে ব্যাট পরে দিয়েছেন বলে রাহানেও উল্লেখ করেন। সেজন্য আমরা রিভিউ নেয়। ফলও পায়।’

দেশের বাইরে ভারতীয় পেসারদের ভালো করার রহস্য জানতে চাইলে বুমরাহ জানান, ‘আমরা মাঠে অনেক কথা বলি। ইশান্ত শর্মার ৯০টির মতো টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা আছে। সামিও অনেক টেস্ট খেলেছেন। মাঠে আমি যখন উইকেট নেয় তখন অন্যদের দায়িত্ব চাপ ধরে রাখা। আবার অন্যরা উইকেট নিলে আমি প্রতিপক্ষকে চাপে রাখার চেষ্টা করি। মাঠে আমরা একে-অপরের সঙ্গে আলাপ করি বলেই ভালো করতে পারছি।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে