স্মিথের ব্যাটিং ‘কুৎসিত’,জন্টি রোডসের মত

0
366
স্মিথের ব্যাটিং স্টাইল একদমই পছন্দ নয় জন্টি রোডসের। ছবি : এএফপি

অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ যতই রান করুক না কেন, তাঁর ব্যাটিং দৃষ্টিসুখকর নয়, এমনটাই মনে করেন জন্টি রোডস। বরং স্মিথের চেয়ে এ দিক দিয়ে এগিয়ে আছেন বিরাট কোহলি।

স্টিভ স্মিথ না বিরাট কোহলি? বর্তমান বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান কে? এই প্রশ্নে গোটা ক্রিকেট দুনিয়া এখন দুই ভাগে বিভক্ত। কেউ স্মিথকে পছন্দ করেন, আবার কারওর পছন্দ কোহলিকে। দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি ক্রিকেটার জন্টি রোডসের ভোট কোহলির বাক্সেই। দুই তারকার ব্যাটিংয়ের পার্থক্যটাও তুলে ধরেছেন তিনি। রোডস মনে করেন, স্মিথের ব্যাটিং মোটেও দৃষ্টি সুখকর নয়। স্মিথের মতো ‘কুৎসিত’ কেতায় সেঞ্চুরি করতে তিনি নাকি আর কোনো ব্যাটসম্যানকেই দেখেননি।

কোহলির ব্যাটিং দেখতে পছন্দ করেন রোডস, ‘আমি কোহলির ব্যাটিং দেখতে পছন্দ করি। কিন্তু স্মিথ, ও যেভাবে ব্যাট করে, ওর ব্যাটিংয়ের ধরন আর অ্যাকশনটা একটু কেমন জানি। ফলে ওর সেঞ্চুরিগুলোও অনেক কুৎসিত হয়। ওর চেয়ে কুৎসিতভাবে সেঞ্চুরি করতে আমি আর কাউকে দেখিনি। কিন্তু ও এভাবেই রানের ফোয়ারা ছুটিয়ে যাচ্ছে।’

বল টেম্পারিং-কাণ্ডের পর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরে এসে রীতিমতো রানের ফোয়ারা ছোটাচ্ছেন অস্ট্রেলীয় তারকা। সদ্য শেষ হওয়া অ্যাশেজে চার টেস্ট খেলে এক ডাবল সেঞ্চুরি ও দুই সেঞ্চুরিসহ ৭৭৪ রান করেছেন স্মিথ। তিন ইনিংসে আউট হয়েছেন যথাক্রমে ৯২, ৯২ ও ৮০ রান করে। বলা বাহুল্য, এ ইনিংসগুলোয় সেঞ্চুরি ‘মিস’ করেছেন স্মিথ। গড়টাও তাঁর ‘ব্র্যাডম্যানীয়’— ১১০.৫৭। অসাধারণ এই ব্যাটিং পারফরম্যান্সের পুরস্কারটা পেয়েছেন হাতেহাতেই। টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর ব্যাটসম্যান হয়েছেন তিনি, কোহলিকে সরিয়ে। স্মিথ একাই যেন অ্যাশেজটা ইংল্যান্ডের হতে দেননি।

তবে এত কিছু করার পরেও রোডসের মন জয় করতে পারেননি স্মিথ, ‘যারা ক্রিকেট দেখতে পছন্দ করতে, তারা “বাহ, কী সুন্দর শট” বলতে চায়, তারা “এহ্‌! কীভাবে এই শটটা ও মারতে পারল!” এটা বলতে চায় না। তাই আমার কাছে বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান কোহলিই, স্মিথ নয়।’

স্মিথকে টপকানোর আরেকটি সুযোগ পাচ্ছেন কোহলি, সামনের অক্টোবরে। রোডসের দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিনটি টেস্ট খেলতে নামবে ভারত, তখনই বোঝা যাবে স্মিথের রানের জবাব কোহলি কেমন দিতে পারেন!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে