স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম থেকে বলিউডে রানু

0
410
‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হির’ ছবিতে হিমেশ রেশমিয়ার সুরে গেয়েছেন রানু মণ্ডল

মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও। নতুন একটি গানের প্রথম লাইন রয়েছে সেই ভিডিওতে, হিন্দিতে। ‘তেরে মেরি, তেরে মেরি কাহানি’। চমকে ওঠার মতো সে কণ্ঠ। ভিডিওতে দুজন মানুষ। একজন বলিউডের জনপ্রিয় সংগীত তারকা হিমেশ রেশমিয়া। অন্যজন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ সময়ের আলোচিত মুখ রানু মণ্ডল। স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে বসে লতা মঙ্গেশকরের ‘এক প্যায়ার কা নাগমা হ্যায়’ গানটি গেয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নবীন তারকা প্রবীণ নারী রানু মণ্ডল।

হিমেশ রেশমিয়া তাঁর ইনস্টাগ্রামে ৫০ সেকেন্ডের ভিডিও দিয়ে খবরটি শেয়ার করেছেন। লিখেছেন, ‘দারুণ প্রতিভাবান রানু মণ্ডলের গানটি রেকর্ড করেছি। ঐশ্বরিক ক্ষমতা তাঁর কণ্ঠে। আসলে আমাদের সবার স্বপ্নগুলো সত্য হতে পারে যদি সেগুলো বোঝার শক্তি থাকে…।’ তিনি আরও লিখেছেন, ‘গানটি আমার হৃদয় ছুঁয়ে গেছে। শিগগিরই গানটি ভিডিওসহ অবমুক্ত করা হবে।’

কয়েক ঘণ্টায় ভিডিওটি আড়াই লাখের বেশি মানুষ দেখেছেন। সেখানে প্রথম মন্তব্যটি বলিউডের আরেক তারকা সুনিল শেঠির। তিনি লিখেছেন, ‘হ্যাট অব অব ইউ হিমেশ, ব্র্যাভো।’ ৬ হাজার ২৫০টি মন্তব্য পড়েছে এই ভিডিওতে।

একেবারেই পথের মানুষ ছিলেন রানু মণ্ডল। পথে পথে ঘুরে বেড়াতেন। সবাই তাঁকে ‘পাগলি’ নামে ডাকত। নিজের খেয়ালে গান করে বেড়াতেন। পশ্চিমবঙ্গের রানাঘাট স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে বসে গাইছিলেন লতা মঙ্গেশকরের ‘এক প্যায়ার কা নাগমা হ্যায়’ গানটি। উৎসুক কেউ একজন গানটি রেকর্ড করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেড়ে দেন। মিষ্টি আর সুরেলা কণ্ঠে গাওয়া সেই গান মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। মুগ্ধ শ্রোতারা রানুর প্রশংসা করে শেয়ার করেন ভিডিওটি।

টিভির একটি অনুষ্ঠানে হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে রানু মণ্ডল।

 

গান ভাইরাল হয়ে যেন ভাগ্য খুলে গেছে রানু মণ্ডলের। অনেকেই সাহায্যের আশ্বাস দিচ্ছেন। জানা গেছে, মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের রিয়েলিটি শোতে গান গাওয়ার ডাক পেয়েছেন রানু। তবে কিন্তু পরিচয়পত্র না থাকায় সমস্যা হয়। এ ছাড়া সম্প্রতি রানু মণ্ডল আসন্ন দুর্গাপূজার একটি থিম সং রেকর্ড করেছেন। শিগগিরই হয়তো মুক্তি পাবে গানটি। তবে সবাইকে যেন ছাড়িয়ে গেলেন হিমেশ। সবার আগে রানুকে গান রেকর্ডের সুযোগ করে দেন হিমেশ রেশমিয়া। গানটি সফলভাবে রেকর্ডিং করা হয়। বলিউডের নতুন ছবি ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হির’-এর ‘তেরি মেরি কাহানি’ গানটি গাইলেন রানু।

রানুকে দিয়ে গান রেকর্ড করার ব্যাপারে হিমেশ রেশমিয়া সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, ‘সালমান (খান) ভাইয়ের বাবা সেলিম খান চাচা আমাকে একবার বলেছিলেন, জীবনে যখনই কোনো প্রতিভাবানের খোঁজ পাবে, তখন তাঁর প্রতিভার বিকাশের জন্য সাহায্য করবে।’ রানুকে দিয়ে গান রেকর্ড করিয়ে সালমানের বাবার দেওয়া উপদেশের তিনি সদ্ব্যবহার করলেন বলে জানিয়েছেন হিমেশ।

কথায় বলে, প্রতিভাকে কখনো দমিয়ে রাখা যায় না। প্রতিভার জোর যে কারও ভাগ্য পাল্টে দিতে পারে, তা আবারও প্রমাণ হলো। আজ গায়িকা রানু মণ্ডল যে প্রত্যেকের অনুপ্রেরণা, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম থেকে তিনি এখন বলিউডে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে