সেমেরুর অগ্ন্যুৎপাতে নিহত বেড়ে ১৩, ঘন ধোঁয়ায় ১১ গ্রাম অন্ধকার

0
41
ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপের মাউন্ট সেমেরু আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাতে নিহত বেড়ে ১৩ জন হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপের মাউন্ট সেমেরু আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাতে নিহত বেড়ে ১৩ জন হয়েছে। দগ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন অন্তত ৫৭ জন। এছাড়া অগ্ন্যুৎপাতের নিকটবর্তী এলাকা থেকে অন্তত ৯০২ জনকে নিরাপদ আশ্রয়ে নেওয়া হয়েছে।

দেশটির জরুরি কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি। এছাড়া ছবি ও ভিডিওতে দেখা গেছে, অগ্ন্যুৎপাত থেকে ছাই ও ধোঁয়ার বিশাল কুণ্ডুলি ছড়িয়ে পড়েছে আশপাশের চারদিকে। গ্রামগুলো ছাইয়ে ঢেকে গেছে। ঘন ধোঁয়ায় সূর্যও আবদ্ধ। আশপাশের চারদিক পুরো অন্ধকার। আর দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করছে স্থানীয়রা।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অন্তত ৫৭ জন আহত হয়েছেন, যাদের অনেকেই গুরুতর দগ্ধ হয়েছেন।

ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ প্রশমন সংস্থার (বিএনপিবি) একজন মুখপাত্র বলেছেন, আহতদের বিভিন্ন হাসপাতাল ও চিকিৎসা সুবিধায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অগ্ন্যুৎপাতের ছাই ও ধোঁয়া লুমাজাং জেলার অন্তত ১১টি গ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে। ঘরবাড়ি কিছু দেখা যাচ্ছে না। এসব এলাকার বাসিন্দাদের উদ্ধার করে এনে মসজিদ ও অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে।

বিএনপিবি আরও জানিয়েছে, এলাকা ছেড়ে আসা লোকজনের আশ্রয়ের জন্য কর্তৃপক্ষ তাঁবু স্থাপন শুরু করেছে। কিন্তু ঘন ধোঁয়ার কারণে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার কাজে বিঘ্ন ঘটছে বলে জানিয়েছেন বিএনপিবি প্রধান সুহারিয়ানতো।

দেশটির আকাশসীমা নিয়ন্ত্রণকারী এয়ারনাভ ইন্দোনেশিয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, অগ্ন্যুৎপাতের কারণে ফ্লাইট চলাচলে উল্লেখযোগ্য কোনো প্রভাব পড়েনি।

ইন্দোনেশিয়ার প্রায় ১৩০টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরির মধ্যে সেমেরু একটি। জাভা দ্বীপের সর্বোচ্চ এ আগ্নেয়গিরিটি থেকে জানুয়ারিতেও অগ্ন্যুৎপাত হয়েছিল।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে