সিরিজে চোখ বাংলাদেশের, ইতিহাসেও

0
165
ছবি: বিসিবি

তিন পেসারের সঙ্গে একজন নিয়মিত স্পিনার। স্পিন সহায়ক দিল্লির উইকেটে এটা ছিল বাংলাদেশের সাহসী সিদ্ধান্ত। প্রথম ম্যাচের পরিকল্পনার সফল বাংলাদেশ। রাজকোটে দ্বিতীয় ম্যাচেও একই দল নিয়ে নামার সম্ভাবনা বেশি টাইগারদের। কারণ বুধবার সন্ধ্যায় রাস্তায় পানি জমে যাওয়া বৃষ্টি হয়েছে রাজকোটে। বৃহস্পতিবারও বৃষ্টির সম্ভবনা আছে। তিন পেসারের সিদ্ধান্ত থেকে তাই বাংলাদেশের সরে আসার কারণ নেই।

তবে ভারতকে তাদের প্রথম ম্যাচের দলে আনতে হতে পারে পরিবর্তন। প্রথম ম্যাচে তারা নিয়মিত তিন স্পিনার নিয়ে খেলেছে। ক্রুনাল পান্ডিয়া, ওয়াশিংটন সুন্দরের সঙ্গে একাদশে ছিলেন যুজবেন্দ্র চাহাল। বৃষ্টি খাওয়া সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেটে তাই দুই পেসার আর তিন স্পিনার নিয়ে নামার সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী হতে পারে। দিপক চাহার এবং খলিল আহমেদের সঙ্গে তাই দলে ঢুকতে পারেন শার্দুল ঠাকুর। অবশ্য অলরাউন্ডার শিভাব দুবে রাখতে পারেন বড় অবদান।

ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা দিল্লি ম্যাচে ধোনিকে ছাড়িয়ে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ টি-২০ ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়েছেন। তার মাইলফলকের ম্যাচ হারে স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় ম্যাচে দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে একশ’ টি-২০ খেলার রেকর্ড ছুঁতে যাচ্ছেন রোহিত। সংক্ষিপ্ত সংস্করণের ক্রিকেটে একশ’র ওপরে ম্যাচ খেলার রেকর্ড আছে কেবল শোয়েব মালিকের। রোহিত শর্মার এই মাইলফলকের ম্যাচও নিজেদের করে নিতে মুখিয়ে আছে বাংলাদেশ।

ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ ২০১৫ সালে একটি ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে। মুস্তাফিজ ছিলেন ওই ম্যাচের নায়ক। এর বাইরে ২০০৭ বিশ্বকাপে জয়, শচীন টেন্ডুলকারের শততম সেঞ্চুরির সেই ম্যাচ নিজেদের করে নেওয়া গেছে। এবার ভারতের মাটিতে টি-২০ সিরিজ জয়ের সুযোগ বাংলাদেশের সামনে। স্বপ্ন পূরণ হওয়ার সামনে বাংলাদেশ। আর এই ম্যাচেও আছেন সেই মুস্তাফিজ। দল পেয়ে গেছে কাঙ্খিত একজন লেগ স্পিনার। মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ তো আছেনই। সব মিলিয়ে আত্মবিশ্বাসী এক দল বাংলাদেশ।

সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় দলের টি-২০ ভার পাওয়া মাহমুদুল্লাহ সিরিজটা জিততে পারলে গড়ে ফেলবেন ইতিহাস। ভারতের মাটিতে সিরিজ জেতা অধিনায়ক হবেন তিনি। রেকর্ড গড়বেন প্রথম অধিনায়ক হিসেবে ভারতের মাটিতে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ জয়ের। সঙ্গে বিশ্বের প্রথম দল হিসেবে ভারতের মাটিতে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ জয়ের রেকর্ড হবে বাংলাদেশ। এর আগে নিউজিল্যান্ড এবং দক্ষিণ আফ্রিকা দুই ম্যাচের সিরিজ জিতেছে।

বাংলাদেশের সম্ভব্য একাদশ: লিটন দাস, নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ, মোসাদ্দেক, আফিফ হোসেন, আমিনুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, আল আমিন হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান।

ভারতের সম্ভব্য একাদশ: রোহিত শর্মা, শেখর ধাওয়ান, কেএল রাহুল, শ্রেয়াস আয়ার, ঋষভ পান্ত, শিভাম দুবে, ক্রুনাল পান্ডিয়া, শার্দুল ঠাকুর, দিপক চাহার, খলিল আহমেদ, যুজবেন্দ্র চাহাল।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে