সাউন্ড বক্স বাজানোকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০

0
223
ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে সাউন্ড বক্স বাজানোকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহতরা। ছবি: সংগৃহীত।

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় সাউন্ড বক্স বাজানোকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছে। আজ সোমবার ভোর ৬টার দিকে উপজেলার ময়না ইউনিয়নের কান্দাকুল গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে ১৬ জনকে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, কান্দাকুল গ্রামে স্থানীয় আধিপত্যকে কেন্দ্র করে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো. হারুন অর রশিদ ও ময়না ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আওয়ামী লীগ সমর্থক মো. আক্তার হোসেনের মধ্যে বিরোধ চলছিল। ওই গ্রামে পল্লি বিদ্যুতের নতুন সংযোগ কোনো পক্ষ আগে পাবে—সম্প্রতি এ নিয়ে এ বিরোধ তুঙ্গে ওঠে।

গতকাল রোববার আক্তার হোসেনের পক্ষের কয়েকজন বিদ্যুতের নতুন সংযোগ পায়। এতে ক্ষুব্ধ হয় হারুন অর রশিদের সমর্থকেরা। এদিকে আক্তার হোসেনের পক্ষের লোকজন বিদ্যুতের নতুন সংযোগ পেয়ে রাতে উচ্চ শব্দে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে উল্লাস করে। হারুন অর রশিদের সমর্থকেরা বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে সাউন্ড বক্স বাজাতে নিষেধ করে। কিন্তু আক্তার হোসেনের সমর্থকেরা এ নিষেধে কর্ণপাত করেনি।

এ ঘটনার জের ধরে আজ ভোরে ওই গ্রামের বিবাদমান দুই পক্ষের সমর্থকেরা ঢালসহ বিভিন্ন ধরনের দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৩০ জন সমর্থক আহত হন। পরে বোয়ালমারী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের মধ্যে বাকী বিশ্বাস (৪৫), আবুল খায়ের (৫৫), হানিফ বিশ্বাস (৪৫), আমিনুল ইসলাম (৩০), ইয়াসিন বিশ্বাস (১৮), ফারুক বিশ্বাস (৩৫), জহির বিশ্বাস (৩৫), আবুল হোসেন (৫০), সুজন বিশ্বাস (২৭), বাসি বিশ্বাস (৩২) ও নওশের বিশ্বাসকে (৩০) বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং গুরুতর আহত শাহাদত হোসেন (২৮), বাদশা বিশ্বাস (৬৫), আলামিন শেখ (১৯), হাকিম বিশ্বাস (৩৯) ও জিহাদ বিশ্বাসকে (২২) ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আক্তার হোসেন বলেন, গতকাল রাতে তাঁর সমর্থকেরা সাউন্ড বক্সে গান বাজাচ্ছিলেন। ওই সময় হারুন অর রশিদের সমর্থকেরা অতর্কিত হামলা করে তাঁর কয়েকজন সমর্থককে মারধর করে। এর জের ধরে আজ সকালে প্রতিপক্ষের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

হারুন অর রশিদ বলেন, ‘পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আজ সকালে আক্তার হোসেনসহ তাঁর সমর্থকেরা আমার সমর্থকদের ওপরে অতর্কিত হামলা করলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বোয়ালমারী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আশুতোষ ভৌমিক বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে বোয়ালমারী থানার পুলিশ আজ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আজ দুপুর ২টা পর্যন্ত কোনো পক্ষই থানায় কোনো অভিযোগ করেনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে