রোনালদোকে পেলের শুভেচ্ছা

0
88
ছবিটি ২০১৩ সালে। ব্যালন ডি’অরের মঞ্চে রোনালদোর সঙ্গে পেলে। কাল গোলের হিসেবে রোনালদো তাঁকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পর শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেননি ব্রাজিলীয় কিংবদন্তিছবি: এএফপি

অনেকেরই বিশ্বাস, পেলেকে বেশ আগেই টপকে গেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। যেহেতু পেলের গোলসংখ্যার সঠিক কোনো হিসাব নেই। জোসেফ বাইকানের গোলসংখ্যার সঠিক সংখ্যা নিয়েও বিতর্ক আছে। এ নিয়ে সংবাদমাধ্যম হিসাব কষছে, বিশ্লেষকেরাও নানা তথ্য–উপাত্ত খুঁজে একটা নিশ্চিত সংখ্যা বের করার চেষ্টা করছেন। ওদিকে ব্রাজিল কিংবদন্তিও পেশাদার ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে নিজের সিংহাসন ধরে রাখার চেষ্টা করেছেন। সেটি মুখের কথায়। কিন্তু রোনালদো এত দিন এসব নিয়ে টুঁ শব্দটি করেননি। কাল ‘নিখুঁত’ এক হ্যাটট্রিকের পর পেলের রেকর্ড ভেঙে ফেলা নিয়ে মুখ খুলেছেন জুভেন্টাস তারকা। আর পেলেও নতুন রেকর্ড গড়ার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রোনালদোকে।

ব্যস, তাহলে তো সব চুকেবুকে গেল! মানে, যে বিতর্কটা এত দিন চলছে, তা মিটে গেল। পেশাদার ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলদাতা কে—এই প্রশ্নে এত দিন নিজেকে সর্বোচ্চ গোলদাতা দাবি করা পেলে নিজেই অভিবাদন জানিয়েছেন রোনালদোকে। ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে তিনবার বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি রোনালদোর প্রতি লিখেছেন, ‘অফিশিয়াল ম্যাচে আমার গোলের রেকর্ড ভাঙায় অভিনন্দন।’

সিরি ‘আ’ তে কাল কালিয়ারির বিপক্ষে ৩–১ গোলে জিতেছে জুভেন্টাস। ৩২ মিনিটের মধ্যে ‘পারফেক্ট’ (মাথা ও দুই পায়ের ব্যবহারে করা গোলে) এক হ্যাটট্রিক করেন রোনালদো। তাঁর ক্যারিয়ারে এটি ৫৭তম হ্যাটট্রিক, সিরি আ তে দ্বিতীয়, প্রথমটা কালিয়ারির বিপক্ষেই এসেছিল। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসির চেয়ে তিনটি হ্যাটট্রিক বেশি করলেন রোনালদো। কিন্তু এসবের চেয়েও জুভেন্টাস তারকাকে বেশি আনন্দ দেবে পেশাদার ফুটবলে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়া, যেখানে পেলেকে টপকে গেলেন পর্তুগিজ তারকা।

পেশাদার ফুটবলে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার সঠিক হিসাব নেই ফিফার কাছে। ফুটবলের ইতিহাস, বই–পুস্তক ও পরিসংখ্যানপোকাদের হিসাবে অফিশিয়াল ম্যাচে তাঁর গোলসংখ্যা ৭৫৭। আবার কিছু পরিসংখ্যানের হিসাবে পেলের গোলসংখ্যা ৭৬৭। কালিয়ারির বিপক্ষে কাল মাঠে নামার আগে রোনালদোর গোলসংখ্যাও ছিল ৭৬৭। হ্যাটট্রিকে তা ৭৭০ গোলে উন্নীত করার পর ইনস্টাগ্রামে এ নিয়ে একটি পোস্ট করেন রোনালদো, ‘পেলের ৭৫৭ অফিশিয়াল গোলের রেকর্ড ভাঙা নিয়ে আমাকে জড়িয়ে গত কয়েক সপ্তাহে প্রচুর আলোচনা, খবর ও পরিসংখ্যান ঘাঁটাঘাঁটি হয়। আমাকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। এই মুহূর্তটির আগে এত দিন কেন এ নিয়ে চুপ ছিলাম, তার ব্যাখ্যা দেওয়া প্রয়োজন।’

রোনালদো লিখেছেন, ‘জনাব, এডসন আরান্তেস নাসিমেন্তোর (পেলে) প্রতি আমার ভালোবাসা ও সম্মান নিঃশর্ত এবং সব সময়ই থাকবে। তার অফিশিয়াল গোলসংখ্যা ৭৬৭ বলেই মনে করেছিল, এর মধ্যে আছে সাও পাওলো রাজ্য দলের হয়ে ৯ গোল এবং সামরিক দলের হয়ে ১ গোল। পৃথিবী এরপর পাল্টেছে, ফুটবলও একরকম থাকেনি। কিন্তু তার মানে এই নয় যে আমরা নিজেদের স্বার্থ অনুযায়ী ইতিহাস পাল্টে ফেলব। আজ আমার গোলসংখ্যা ৭৭০ হলো, পেশাদার ফুটবলে আমার অফিশিয়াল গোলসংখ্যা। সবার আগে প্রথম কথাটা আমি পেলের প্রতি বলতে চাই। বিশ্বে এমন কোনো ফুটবলার নেই যে পেলের গল্প ও কীর্তি শুনে বড় হয়নি। আমিও তাদের ব্যতিক্রম নই। আর তাই অফিশিয়াল ম্যাচে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে ভীষণ আনন্দ ও গর্ব হচ্ছে, কারণ মাদেইরায় বড় হয়ে ওঠার সময় কখনো ভাবতে পারিনি একদিন পেলের রেকর্ড ভাঙব।’

রোনালদো আপ্লুত পেলের রেকর্ড ভেঙে।

রোনালদো আপ্লুত পেলের রেকর্ড ভেঙে।
ছবি: এএফপি

সতীর্থ, পরিবারসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে রোনালদো আরও লিখেছেন, ‘এই যাত্রায় যারা আমার সঙ্গী তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। আমার পরিবার ও বন্ধুবর্গকেও ধন্যবাদ, আমার ওপর আস্থা রাখার জন্য। তোমাদের ছাড়া এতটা পথ আসতে পারতাম না। এখন পরের ম্যাচ ও চ্যালেঞ্জের অপেক্ষা। বিশ্বাস করুন, গল্পটা শেষ হয়নি। সামনেই ভবিষ্যৎ, পর্তুগাল ও জুভেন্টাসের হয়ে এখনো অনেক কিছু জেতা বাকি। এই অভিযাত্রায় আপনিও শামিল হোন আমার সঙ্গে!’

রোনালদোকে অভিবাদন জানাতে ৮০ বছর বয়সী পেলেও একটি পোস্ট করেন ইনস্টাগ্রামে, ‘জীবন হলো একার লড়াই। নিজের ভাগ্য নিজেকে গড়ে নিতে হয়। তোমার (রোনালদো) অভিযাত্রাটা কী দারুণ! তোমার খুব প্রশংসা করি, তোমার খেলা দেখতে ভালো লাগে, এটা কারও অজানা নয়। অফিশিয়াল ম্যাচে আমার গোলের রেকর্ড ভাঙার জন্য অভিনন্দন। একটাই অনুশোচনা, এমন একটা দিনে তোমাকে একটু জড়িয়ে ধরতে পারছি না। কিন্তু তোমার সম্মানে এই (ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা ছবি) ছবিটা দিলাম। বহু বছরের বন্ধুত্ব ও স্নেহের স্মারক হিসেবে।’

গত জানুয়ারিতে চেক ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দাবি করেছিল, জোসেফ বাইকানের অফিশিয়াল ম্যাচে গোলসংখ্যা ৮২১। যদিও ফুটবল পরিসংখ্যান ফাউন্ডেশনের (আরএসএসএসএফ) হিসাবমতে, তাঁর গোলসংখ্যা ৮০৫। এর মধ্যে ২৭ গোল করেছিলেন র‌্যাপিড ভিয়েনার রিজার্ভ ও অপেশাদার দলের হয়ে। এ ছাড়া আন–অফিশিয়াল কিছু ম্যাচে করা গোলও যোগ করা হয়েছে হিসাবে। এসব বাদ দিলে বাইকানের গোলসংখ্যা দাঁড়ায় ৭৫৯—পেলে ও রোনালদোর গোলসংখ্যার চেয়ে কম।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে