যৌন নিপীড়নের অভিযোগ থেকে ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে ফাঁসলেন সিএনএন উপস্থাপক

0
44
ক্রিস কুমোছ, বি: রয়টার্স ফাইল ছবি

ভাইকে যৌন কেলেঙ্কারির মামলা থেকে বাঁচাতে পর্দার অন্তরালে ক্রিস প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ ওঠার পর গত মঙ্গলবারই তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করে সিএনএন। তাঁর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে এরপর তদন্ত শুরু হয়। তখন প্রতিষ্ঠানটির বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, চাকরির আগে পরিবারকে অগ্রাধিকার দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা সিএনএন বোঝে এবং এর প্রশংসা করে। তবে ক্রিস তাঁর ভাইকে যে ধরনের পরামর্শ দিয়েছেন, তা সাংবাদিকতার নীতিবিরোধী।

ক্রিসের বিরুদ্ধে তদন্তে নতুন নতুন তথ্য বের হয়ে আসার পর তাঁকে চূড়ান্তভাবে বরখাস্তের ঘোষণা দেয় সিএনএন। প্রতিষ্ঠানটির এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ক্রিস কুমো তাঁর রাজনীতিবিদ ভাইকে কীভাবে সহযোগিতা করেছেন, তা জানতে স্বনামধন্য একটি আইনি প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। তবে পর্যালোচনা শুরুর পর নতুন তথ্য প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে। আর এমন অবস্থায় অবিলম্বে তাঁর সঙ্গে আমাদের প্রতিষ্ঠানের চুক্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর করা হলো।’

বরখাস্তের সিদ্ধান্তে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছেন ৫১ বছর বয়সী ক্রিস কুমো। হতাশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘সিএনএন থেকে যেভাবে বিদায় নিতে চেয়েছিলাম, সেভাবে হলো না।’

২০১৩ সাল থেকে সিএনএনের সঙ্গে যুক্ত হন ক্রিস কুমো। সংবাদমাধ্যমটির অন্যতম একজন সংবাদ পাঠক হিসেবে পরিচিতি পান তিনি। ২০২০ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সিএনএন যে কাভারেজ দিয়েছে, তার নেতৃত্বে ছিলেন ক্রিস কুমো।

সোমবার নিউইয়র্ক অ্যাটর্নি জেনারেল লেটিশিয়া জেমস প্রকাশিত নথিতে দেখা গেছে, ক্রিস কুমো ধারাবাহিকভাবে গভর্নরের কর্মীদের চাপ দিচ্ছিলেন। ভাইয়ের সুরক্ষায় বড় ধরনের ভূমিকা রাখার চেষ্টা করছিলেন তিনি। মার্চে ভাইয়ের সেক্রেটারি মেলিসা ডেরোসাকে একটি বার্তা পাঠিয়েছিলেন ক্রিস। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘আমার ওপর আস্থা রাখুন। আমরা এমন ভুল করছি, যার মাশুল আমরা গুনতে পারব না।’ সামনে ভাইয়ের বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ হতে যাচ্ছে, সে ব্যাপারে জানতে অন্য মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোর সঙ্গেও যোগাযোগের অঙ্গীকার করেছিলেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে