যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে কারারক্ষী গ্রেপ্তার

0
79

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে মো. খায়রুল ইসলাম (২৫) নামের কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের এক কারারক্ষীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার বিকেলে কটিয়াদী উপজেলার মণ্ডলভোগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে বাট্টা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। এ ঘটনায় কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

খায়রুল ইসলাম টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলার বাইপাইল ছোট্ট গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে। তার স্ত্রী রুমা আক্তার কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার পূর্ব মণ্ডল ভোগ গ্রামের আবদুল মান্নানের মেয়ে এবং কিশোরগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।

পুলিশ জানায়, দেড় বছর আগে রুমা আক্তারকে বিয়ে করেন কারারক্ষী সাইফুল ইসলাম। স্ত্রীকে নিয়ে তিনি কারাগার কোয়ার্টারে থাকতেন।

রুমার পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই খাইরুল যৌতুকের জন্য রুমা ও তাদের চাপ দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে রুমার পরিবার খাইরুলের হাতে নগদ ৩ লাখ টাকা এবং ৩ ভরি স্বর্ণালংকার তুলে দেন। এরপরও খায়রুল যৌতুকের টাকার জন্য রুমার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালাত। গত ২২ ডিসেম্বর রাতে রুমাকে মারধর করে খায়রুল। খবর পেয়ে রাতেই রুমার মা ছিনু বেগম কিশোরগঞ্জ এসে তাকে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতাল নিয়ে যান। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং পরে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর গত মঙ্গলবার রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। আজ (বুধবার)  ময়নাতদন্তের জন্য রুমার লাশ কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু বকর সিদ্দিক জানান, কারারক্ষী খাইরুল ইসলামকে বিকেলে পশ্চিম মণ্ডল ভোগ এলাকা থেকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় রুমা আক্তারের মা বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার বজলুর রশিদ বলেন, ‘খাইরুল ইসলাম অসুস্থতাজনিত ছুটিতে ছিলেন। তবে স্ত্রী হত্যার অভিযোগে পুলিশ তাকে আটক করেছে বলে খবর পেয়েছি। গ্রেপ্তার ও মামলা সংক্রান্ত কাগজপত্র পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে