ম্যাচ তিন দিনে নিতে পারল বাংলাদেশ

0
181
ইডেন গার্ডেনস টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে আবারও বিপর্যয়ে বাংলাদেশ। ৬ উইকেটে ১৫২ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছেন মুমিনুলরা ইন্দোর টেস্টে তিন দিনের মধ্যে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। ইডেন গার্ডেনসে গোলাপি বলে দিবারাত্রির এই টেস্টেও কি ফিরে আসছে সে স্মৃতি? বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসে শুরুটা কিন্তু তেমন ইঙ্গিতই দিচ্ছিল। ২৪১ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০ রান তোলার আগেই ৪ উইকেট নেই! শেষ পর্যন্ত মুশফিকুর রহিম এক প্রান্ত আগলে রাখায় ৬ উইকেটে ১৫২ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করতে পেরেছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ খেলাটা তৃতীয় দিনে টেনে নিতে পারল সফরকারিরা। Robi Offer টেস্ট ক্রিকেটে প্রায় দুই দশকে পা রেখে খেলা তৃতীয় দিনে টেনে নিতে পারায় কোনো সন্তুষ্টি নেই। কিন্তু ইডেন গার্ডেনস টেস্টে ব্যাটসম্যানদের যাওয়া আসার মিছিলের জন্যই কথাটা বলা হচ্ছে। আজ দ্বিতীয় ইনিংসেও চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছিল দল। প্রথম ওভারেই ফিরে যান ওপেনার সাদমান ইসলাম। মাঝে এক ওভার পর ড্রেসিং রুমের পথ ধরেন মুমিনুল হকও। দলীয় ১৩ রানের মধ্যে ফিরে যান সাদমান, মুমিনুল, ইমরুল ও মিঠুন। এরপর বাংলাদেশ দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করতে পারবে কি না তা নিয়েই সংশয় ছিল। কোনোমতে দ্বিতীয় দিন পারি দিতে পারলেও ইনিংস ব্যবধান এড়াতে বাংলাদেশ এখনো ৮৯ রানের দূরত্বে। হাতে মাত্র ৪ উইকেট। বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩০.৩ ওভারে ১০৬ রানে অলআউট হয়। বল খেলায় দ্বিতীয় ইনিংসে তুলনামূলক ভালো করেছে দল। আজ ৩২.৩ ওভার খেলেছেন মুশফিকরা। পঞ্চম উইকেটে ৬৯ রানের জুটি গড়ে ভালোই এগোচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু ব্যক্তিগত ৩৯ রানে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ। তাঁর বদলি হিসেবে নেমে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি মেহেদী হাসান মিরাজ। ২২ বলে ১৫ রান করে ইশান্তের শিকার হন তিনি। স্পিনার তাইজুল ইসলামের সঙ্গে ৩৯ বলে ১৯ রানে জুটি গড়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন মুশফিক। তাইজুলকে (২৪ বলে ১১) উমেশ যাদব তুলে নেওয়ার পর দ্বিতীয় দিনের খেলার সমাপ্তি টানেন মাঠের আম্পায়ার। ৫৯ রানে অপরাজিত রয়েছেন মুশফিক। অধিনায়ক মুমিনুল হক সুবিধা করতে পারেননি দ্বিতীয় ইনিংসেও। দলের ইনিংসে তৃতীয় ওভারে আউট হয়েছেন সেই ইশান্তের বলেই। সাদমান ৫ বল খেললেও তাঁর চেয়ে একটি বল বেশি খেলতে পেরেছেন মুমিনুল। যদিও স্কোর দুজনেরই সমান—০। প্রথম ইনিংসেও শূন্য রানে আউট হওয়ায় ‘পেয়ার’ বা চশমা পেলেন মুমিনুল। উইকেটে রয়েছেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ। চারে ব্যাটিং করতে এসেছেন মিঠুন। অথচ বাংলাদেশ দলের সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে স্বীকৃত মুশফিকুর রহিম নেমেছেন পাঁচে। দলের বিপর্যয় রুখতে মুশফিকের আগের নামা উচিত ছিল কি না, সে প্রশ্ন থেকেই যায়। ষষ্ট ওভারে উমেশ যাদবের বলে বাজে শট খেলে ক্যাচ দেন মিঠুন (৬)। পরের ওভারে ইমরুল কায়েসকে স্লিপে শিকার করেন ইশান্ত। ইমরুলের ব্যাট ছুঁয়ে যাওয়া বল তৃতীয় স্লিপে তালুবন্দী করেন কোহলি। মাত্র ৫ রান করতে পেরেছেন বাংলাদেশের এ ওপেনার। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া ইশান্ত দ্বিতীয় ইনিংসে এ পর্যন্ত ৪ উইকেট নিয়েছেন। ২ উইকেট উমেশের।
ইডেন গার্ডেনস টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে আবারও বিপর্যয়ে বাংলাদেশ। দলের দ্বিতীয় ইনিংসেও কোনো রান করতে পারেননি অধিনায়ক মুমিনুল

 

ইন্দোর টেস্টে তিন দিনের মধ্যে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। ইডেন গার্ডেনসে গোলাপি বলে দিবারাত্রির এই টেস্টেও কি ফিরে আসছে সে স্মৃতি? বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা কিন্তু তেমন ইঙ্গিতই দিচ্ছে। ২৪১ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে চরম বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। প্রথম ওভারেই ফিরে যান ওপেনার সাদমান ইসলাম। মাঝে এক ওভার পর ড্রেসিং রুমের পথ ধরেন মুমিনুল হকও। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৫ উইকেটে ১৩৫ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

আজ দ্বিতীয় দিনে ৯ উইকেটে ৩৪৭ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩০.৩ ওভারে ১০৬ রানে অলআউট হয়। এতে প্রথম ইনিংসেই পিছিয়ে পড়তে হয়েছে বিশাল ব্যবধানে। আজ দ্বিতীয় দিনে ন্যূনতম ৪৪ ওভার ব্যাট করতে হবে বাংলাদেশকে। এ অবস্থায় ২০ রান তোলার আগেই ৪ উইকেট হারানো ছিল ম্যাচ দুই দিনেই শেষ হয়ে যাওয়ার পূর্বাভাস। এরপর পঞ্চম উইকেটে ৬৯ রানের জুটি গড়ে ভালোই এগোচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু ব্যক্তিগত ৩৯ রানে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন মাহমুদউল্লাহ। তাঁর বদলি হিসেবে ব্যাটিংয়ে নামেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ২২ বলে ১৫ রান করে ইশান্তের শিকার হন তিনি। স্পিনার তাইজুল ইসলামকে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন মুশফিক (৫৩*)।

আপাতত ম্যাচটা তৃতীয় দিনে টেনে নিতেই কষ্ট হচ্ছে সফরকারিদের। অধিনায়ক মুমিনুল হক সুবিধা করতে পারেননি দ্বিতীয় ইনিংসেও। দলের ইনিংসে তৃতীয় ওভারে আউট হয়েছেন সেই ইশান্তের বলেই। সাদমান ৫ বল খেললেও তাঁর চেয়ে একটি বল বেশি খেলতে পেরেছেন মুমিনুল। যদিও স্কোর দুজনেরই সমান—০। প্রথম ইনিংসেও শূন্য রানে আউট হওয়ায় ‘পেয়ার’ বা চশমা পেলেন মুমিনুল। উইকেটে রয়েছেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ। চারে ব্যাটিং করতে এসেছেন মিঠুন। অথচ বাংলাদেশ দলের সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে স্বীকৃত মুশফিকুর রহিম নেমেছেন পাঁচে। দলের বিপর্যয় রুখতে মুশফিকের আগের নামা উচিত ছিল কি না, সে প্রশ্ন থেকেই যায়।

ষষ্ট ওভারে উমেশ যাদবের বলে বাজে শট খেলে ক্যাচ দেন মিঠুন (৬)। পরের ওভারে ইমরুল কায়েসকে স্লিপে শিকার করেন ইশান্ত। ইমরুলের ব্যাট ছুঁয়ে যাওয়া বল তৃতীয় স্লিপে তালুবন্দী করেন কোহলি। মাত্র ৫ রান করতে পেরেছেন বাংলাদেশের এ ওপেনার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে