মোংলায় পর্যবেক্ষণে রাখা একজনের অবস্থার উন্নতি, দুইজনের অবনতি

0
118
মোংলা বন্দরে একটি জাহাজে পর্যবেক্ষণে রাখা জ্বরে আক্রান্ত তিন বিদেশি নাবিকের একজনের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে; দুইজনের অবনতি হয়েছে।

প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে বাগেরহাটের মোংলা বন্দরে একটি জাহাজে পর্যবেক্ষণে রাখা জ্বরে আক্রান্ত তিন বিদেশি নাবিকের একজনের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে; তবে অবনতি হয়েছে দুইজনের অবস্থার।

বিদেশি জাহাজটি থেকে গত তিনদিন ধরে সকল প্রকার পণ্য খালাসের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। ফিলিপাইনের ওই তিন নাবিককে শনিবার বিকেল পর্যন্ত জাহাজের মধ্যেই একটি কক্ষে গভীর পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

আইল্যান্ডের পতাকাবাহী সিমেন্ট বোঝাই এমভি সিরিনিটাস এন নামক মার্সেল জাহাজটি ২৪ হাজার মেট্রিকটন কয়লা নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের হারবাড়িয়ায় নোঙ্গর করে।

এ সময় স্বাস্থ্যকর্মীরা ২০ নাবিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে গেলে ফিলিপাইনের তিন নাবিককে গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় দেখতে পান। ভয়ে দ্রুত জাহাজ থেকে নেমে পড়েন এজেন্ট ও কাষ্টমস প্রতিনিধিসহ বাংলাদেশি শ্রমিকরা।

জাহাজটি থেকে সকল পণ্য খালাস কাজ বন্ধ রাখার পাশাপাশি লোকজন যাতে জাহাজ থেকে বাইরে অথবা বাইরে থেকে জাহাজে কোনভাবেই প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য কঠোর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মোংলা পোর্ট হেলথের খুলনার মেডিকেল অফিসার ডা. সুফয়া খাতুন। তবে এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলেও জানান তিনি।

সুফয়া বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে, শুক্রবার দিনে ও শনিবার দিনে তিন দফায় পোর্ট হেলথের ডাক্তররা ফিলিপাইনের এই তিন নাবিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন। এখন পর্যন্ত তারা নিশ্চিত নয় যে, অসুস্থ তিন নাবিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে আক্রান্ত বলে তাদেরকে সন্দেহ করা হচ্ছে।

পোর্ট হেলথের ডা. ফয়সাল ইসলামের নেতৃত্বে পোর্ট হেলথের চিকিৎকরা শনিবার দুপুরে ওই জাহাজে গিয়ে অসুস্থ তিন নাবিকের শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। এদের মধ্যে একজনের শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে কিছুটা উন্নতি হলেও অন্য বাকী দুইজনের অবস্থার অবনতি হয়েছে। এদের শরীরের তাপমাত্রা অনেক বেশি।

ফয়সাল ইসলাম জানান, আপাতত এদের ওই জাহাজের একটি নির্দিষ্ট কেবিনে চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। এদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট ইতিমধ্যে ঢাকায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ডিজির কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। পরে ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের হাসপাতালে ভর্তি বা জাহাজে রেখে চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এদিকে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের উপসচিব মাকরুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মোংলা বন্দরে করোনা ভাইারাস আক্রান্ত কোন রোগী শনাক্ত হয়নি। কিছু মিডিয়ায় ইতোমধ্যে ‘মোংলা বন্দরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রচার হয়েছে; যা গুজব ও ভিত্তিহীন। সবাইকে বস্তুনিষ্ঠ ও সঠিক তথ্য প্রকাশে অনুরোধ করা হলো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে