মেসির রেকর্ডে ভাগ বসালেন লেভানডোফস্কি

0
261
মেসির পাশে লেফান্ডোফস্কি। ছবি: এএফপি
চ্যাম্পিয়নস লিগে আবারও এক ম্যাচে চার গোল করেছেন পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডোফস্কি। আর এই চার গোল করেই রেকর্ড বইতে বসেছেন মেসির পাশে।

২০১৩ সালে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে একাই যখন চার গোল করলেন রবার্ট লেভানডোফস্কি, এই প্রথম আলোতেই শিরোনাম করে তাঁর পরিচয় দেওয়া হয়েছিল ‘লন্ডভন্ডস্কি’ নামে। অর্ধযুগ পর আবারও চ্যাম্পিয়নস লিগে লেভানডোফস্কি সেই ‘লন্ডভন্ড’ করে দেওয়া রূপ দেখল বিশ্ব। আর এবার পুড়ে খাক হলো রেড স্টার বেলগ্রেড। চ্যাম্পিয়নস লিগে আবারও একাই চার গোল করেছেন তিনি। চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে দুইবার ম্যাচে চারটি করে গোল করার কৃতিত্ব আর আছে লিওনেল মেসির।

তবে চারটি নয়, লেভানডোফস্কি গোল হওয়ার কথা ছিল পাঁচটি। তাঁর প্রথম গোলটা বাতিল করে দিয়েছিল ভিএআর। সে কারণেই কী না, আরও তেতে উঠলেন ‘লন্ডভন্ডস্কি’। ১৪ মিনিট ৩১ সেকেন্ডের মধ্যে করে ফেললেন এক হালি গোল। চ্যাম্পিয়নস লিগে এত তাড়াতাড়ি চার গোল করার রেকর্ড খোদ মেসিরও নেই! লেভানডোফস্কি চার গোলের আগে পরে লিওন গোরেতজকা ও কোরেন্তিন তোলিসোর একটি করে গোল মিলিয়ে রেড স্টার বেলগ্রেডকে আধ ডজন গোলের মালা পরিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ।

এই চার গোল মিলিয়ে তাঁর চ্যাম্পিয়নস লিগে গোল দাঁড়াল ৪৬টিতে, আর এতেই বায়ার্ন মিউনিখের ইতিহাসে চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে গেছেন তিনি।

এ নিয়ে এবার চ্যাম্পিয়নস লিগে ৫ ম্যাচ খেলে লেভানডোফস্কি গোল করলেন ১০টি। বুন্দেসলিগায় এরই মধ্যে ১৬ গোল করা হয়ে গেছে তার। জার্মান কাপেও গোল করেছেন একটি। সব মিলিয়ে এই মৌসুমের অর্ধেক যেতে না যেতেই তার গোলের সংখ্যা ২৭! ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে মোট ২১ ম্যাচে গোল করেছেন ৩১টি। বছরের হিসাব করলে e বছর ৫১ ম্যাচে ৫১ গোল করেছেন লেভানডোফস্কি। বয়স যত বাড়ছে, গোলের সামনে তত বেশি ক্ষুরধার হচ্ছেন যেন!

ওদিকে শাখতার দোনেতস্কের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে ম্যানচেস্টার সিটি। ৫৬ মিনিটে ইলকায় গুন্দোগানের দেওয়া গোল ৬৯ মিনিটে শোধ করেছেন মারিও সলোমন। অলিম্পিয়াকোসের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে প্রথমে ২ গোলে পিছিয়ে থেকেও পরে ৪-২ গোলের জয় তুলে নিয়েছে হোসে মরিনহোর নতুন ক্লাব টটেনহাম হটস্পার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে