মেঝেতে পড়ে ছিল ছেলে, গ্রিলে ঝুলছিলেন বাবা।

0
300
ছবি প্রতিকী।

গাজীপুরের টঙ্গীতে বাবা-ছেলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্য, তাঁদের মৃত্যু সন্দেহজনক।

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে টঙ্গীর হাজিবাড়ি এলাকার একটি বাড়ি থেকে বাবা-ছেলের লাশ উদ্ধার করা হয়। টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

নিহত ব্যক্তি হলেন মো. আবদুল হালিম ও তাঁর শিশুসন্তান মোহাম্মদ নোমান (৮)।

আবদুল হালিম ফুটপাতে মসলার ব্যবসা করতেন। তিনি স্থানীয় শাহজাদা আলমের বাড়ির পাঁচতলায় ভাড়া থাকতেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি নরসিংদীর বেলাব থানার বটেশ্বর গ্রামে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, আবদুল হালিম তাঁর স্ত্রী ও চার সন্তান নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। গতকাল রাত তিনটার দিকে তাঁর স্ত্রী ইসনাহার বেগম চিৎকার শুরু করেন। তাঁর চিৎকার শুনে অন্যান্য ভাড়াটে ও স্থানীয় লোকজন ছুটে আসেন। এ সময় ঘরের মেঝেতে নোমানকে নিথর অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। আর বারান্দার গ্রিলে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় আবদুল হালিমকে ঝুলে দেখা যায়।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে।

টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি কামাল হোসেন বলেন, লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে দুজনের মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে