মশার ওষুধ ছিটানোর সময় আতঙ্কে ১৪ শিক্ষার্থী অসুস্থ

0
356
মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল।

ফগার মেশিনে মশা মারার ওষুধ ছিটানোর সময় মৌলভীবাজার পৌর এলাকার একটি স্কুলের ১৪ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

অসুস্থ শিক্ষার্থীদের মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসকেরা বলছেন, আতঙ্ক থেকে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

শিক্ষক, হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে মৌলভীবাজার পৌর এলাকায় ফগার মেশিনে মশার ওষুধ ছিটানোর কার্যক্রম চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে দি ফ্লাওয়ার্স কেজি অ্যান্ড হাইস্কুল ভবনের বাইরের দিকে ওষুধ ছিটানো হয়। এ সময় অষ্টম ও সপ্তম শ্রেণির কয়েকজন শিক্ষার্থী অসুস্থ বোধ করে। তাৎক্ষণিক তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে আরও কয়েকজন অসুস্থ হয়ে পড়ে। এভাবে ১৪ জনকে হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ফ্লাওয়ার্স কেজি অ্যান্ড হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল করিম বলেন, পৌরসভা মশা নিধনের জন্য স্কুলের পেছন দিকে স্প্রে করছিল। এ সময় প্রথমে চার-পাঁচজন অসুস্থ বোধ করে। তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে আরও কয়েকজন অসুস্থ বোধ করলে তাদেরও হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক চিকিৎসক পার্থ সারথি দত্ত কাননগো শনিবার বিকেলে বলেন, ভয়ের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। বেশির ভাগই সুস্থ হয়ে চলে গেছে। (শনিবার বিকেল পর্যন্ত) তিনজন ভর্তি আছে। তারাও ভালোর দিকে। পর্যবেক্ষণের জন্য রাখা হয়েছিল। ছেড়ে দেওয়া হবে। আশঙ্কাজনক বা ভয়ের কিছু নেই।

মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান অসুস্থ শিক্ষার্থীদের বিষয়ে একই কথা বলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.