মক্কেলের অন্তরঙ্গ ছবি চুরি করে চাকরি গেল তাঁর

0
195

শখের আইফোনটাকে সার্ভিস সেন্টারে ঠিক করাতে নিয়ে গিয়েছিলেন গ্লোরিয়া ফুয়েন্তেস। কিন্তু ঠিক করার সঙ্গে সঙ্গে গ্লোরিয়ার অন্তরঙ্গ ও ব্যক্তিগত ছবিও নিয়ে নেন সার্ভিস সেন্টারে কর্মরত অ্যাপলের এক কর্মী। এরপর গ্লোরিয়ারকে উত্ত্যক্ত করা শুরু হয়।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার বেকারসফিল্ডে গত সপ্তাহে এমন ঘটনা ঘটে। গ্লোরিয়া ফুয়েন্তেস নিজের আইফোনটি সার্ভিসিংয়ে দেওয়ার আগে ফোন থেকে কিছু অ্যাপ্লিকেশন আনইনস্টল করেছিলেন। গ্যালারিতে থাকা ব্যক্তিগত ছবিগুলোও তিনি সরিয়ে ফেলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সময়ের অভাবে শেষতক তা আর করা হয়ে ওঠেনি।

এক ফেসবুক পোস্টে গ্লোরিয়া লিখেছেন, সেই ভুলই তাঁর কাল হয়ে দাঁড়ায়। সার্ভিস সেন্টারের কর্মী তাঁর মোবাইল ফোন সেট নিয়ে বিভিন্ন ত্রুটি ঠিক করার ভান ধরেছিলেন। দুইবার তিনি গোপন পাসওয়ার্ডও জানতে চান। সার্ভিস সেন্টারে ফোন ঠিক করতে নিলে পাসওয়ার্ড অনেক সময় জানতে চাওয়া হয়। সেই ভেবে সরল মনে নিজের পাসওয়ার্ডও দেন গ্লোরিয়া। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করার পর গ্লোরিয়াকে ফোন ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু বাসায় ফিরেই এক অচেনা নম্বর থেকে টেক্সট মেসেজ পান গ্লোরিয়া। সেই বার্তা খুলেই আকাশ ভেঙে পড়ে গ্লোরিয়ার মাথায়। ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘আমার তখন কান্না পাচ্ছিল। ওই ব্যক্তি আমার ফোনের গ্যালারিতে থাকা একটি অত্যন্ত অন্তরঙ্গ সময়ের ছবি হাতিয়ে নিয়েছিলেন এবং অচেনা নম্বর থেকে সেটাই আমাকে পাঠিয়েছিলেন। ওই ছবিটি আমার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুর জন্য আমি তুলেছিলাম।’

এরপরই সেই অ্যাপল স্টোরে ফিরে গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন গ্লোরিয়া। কর্তৃপক্ষ ওই ঘটনার তদন্ত করার কথা জানায়। অভিযুক্ত কর্মীকেও ধরেছিলেন গ্লোরিয়া। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে ওই ব্যক্তি স্বীকার করেন যে, ছবি পাঠানো নম্বরটি তাঁরই। কিন্তু গ্লোরিয়ার ওই ছবি কীভাবে তাঁর ফোনে গেল, তা তিনি জানেন না বলে দাবি করেছিলেন।

তদন্তের পর অবশ্য অ্যাপল ওই কর্মীকে বরখাস্ত করেছে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে কোম্পানিটি এই খবর নিশ্চিত করেছে।

অবশ্য এখানেই থামছেন না গ্লোরিয়া ফুয়েন্তেস। অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে স্থানীয় পুলিশ বিভাগে অভিযোগ দায়ের করেছেন গ্লোরিয়া। বেকারসফিল্ড পুলিশ ডিপার্টমেন্ট এরই মধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে