‘ভারতীয় খাবার ভয়ংকর’ টুইটে তোলপাড়

0
147
ছবি: রয়টার্স

‘ভারতীয় খাবার ভয়ংকর’—এ কথা লিখে যুক্তরাষ্ট্রের এক শিক্ষকের টুইট করা নিয়ে শুরু হয়েছে তোলপাড়। তাঁর এই মন্তব্য সাংস্কৃতিক অসহিষ্ণুতা ও আন্তর্জাতিক রান্নার প্রতি বর্ণবাদী মনোভাব প্রকাশ করেছে বলে পাল্টা মন্তব্য করছেন সমালোচকেরা।

ঘটনার শুরু যে মন্তব্য নিয়ে, তা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাল ওয়ার কলেজের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ের শিক্ষক টম নিকোলস। টুইটারে এক ব্যক্তি বিতর্কিত খাদ্য নিয়ে মানুষের মন্তব্য জানতে চান। ওই পোস্টে ভারতীয় খাবার নিয়ে এমন নেতিবাচক মন্তব্য করেন নিকোলস। তিনি বলেন, ‘ভারতীয় খাবার ভয়ংকর এবং আমরা এমন ভাব করি যেন তা না।’ তাঁর এই মন্তব্যে খেপে যান অনেকে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁর মন্তব্যের বিরুদ্ধে কথা বলা শুরু করেন। কেউ কেউ এই মন্তব্যকে ‘রসকষহীন গড় মন্তব্য’ বলে অভিহিত করেন। বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

নিকোলসের মন্তব্যের নিচে নামকরা রন্ধনশিল্পী পদ্ম লক্ষ্মী জানতে চান, ‘আপনার কি মুখে রসকষ নেই?’

আরেকজন মন্তব্য করেন, ‘ভাবুন তো, কেমন নীরস জীবনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।’

এরপর নিউইয়র্কের এক সাবেক কৌঁসুলি প্রিত ভারারা মন্তব্য করেন, ‘টম আমি আপনাকে এক জায়গায় নিয়ে যাব। আমরা বাটার চিকেন সম্মেলনে যাব।’

আরেকজন মন্তব্য করেন, ‘নিকোলস হয়তো ভারতীয় খাবারের ১ শতাংশের কম চেখে দেখেছেন, যা একটি বিশাল বৈচিত্র্যময় দেশ থেকে আসে।’

একজন নিকোলসের কাছে জানতে চান, ‘ভারতের কোথায় গিয়ে আপনি খেয়েছেন। বিলিয়নভক্ত কখনো ভুল হতে পারে না।’

পরে নিকোলসও স্বীকার করেন যে তিনি কেবল যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের রেস্টুরেন্টে বসে ভারতীয় খাবার খেয়েছেন।

ওই টুইটের পাশাপাশি এই বিতর্ক ভারতীয় মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়েছে। কেউ কেউ ‘হ্যাশট্যাগ মাই ফেবারিট ইন্ডিয়ান ফুড’ চালু করেছেন। ভোজনরসিকদের অনেকই এই মন্তব্যকে বর্ণবাদী আচরণ বলে অভিহিত করছেন। কেউ কেউ এর মধ্যে চীনা খাবার নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য শুরু করেছেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে কেউ কেউ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের খাবারের বিরুদ্ধে মন্তব্য। সব মিলিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই নিয়ে শুরু হয়েছে তোলপাড়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে