বড় বাঁচা বেঁচে গেলেন নেইমার

0
155

লিঁওর কাছে ১-০ গোলে হেরে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান থেকে ছিটকে গেছে পিএসজি। এই হারের রাতে পিএসজির জন্য আরও দুঃসংবাদ হয়ে এসেছে নেইমারের চোট। গোড়ালিতে চোট পেয়ে ব্যথায় কাঁদতে কাঁদতে স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়েন ব্রাজিলিয়ান এই তারকা। অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়েছিল, নেইমারের আঘাত বেশ গুরুতর। তবে সোমবার এক্স-রে করার পর জানা গেছে, বড় বাঁচা বেঁচে গেছেন নেইমার। তার গোড়ালিতে কোনো ফ্র্যাকচার (মচকে) হয়নি। তবে লিগামেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিস্তারিত বিবৃতি দিবে বলে জানিয়েছে পিএসজি।

তখন যোগ করা সময়ের ষষ্ঠ মিনিটের খেলা চলছে। লিঁওর সীমানায় বল পেয়ে দু’জনকে কাটিয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছিলেন নেইমার। কাটাতে যাচ্ছিলেন থিয়াগো মেন্দেজকেও। কিন্তু লিঁওর এই মিডফিল্ডার পুরো শরীর ছুড়ে দিয়ে জোড়া পায়ে নেইমারের বাঁ পায়ের গোড়ালিতে স্লাইডিং ট্যাকেল করেন। সঙ্গে সঙ্গে পড়ে গিয়ে বাঁ গোড়ালি ধরে যন্ত্রণায় কাতরাতে কাতরাতে হাত উঁচিয়ে ডাক্তারকে ডাকতে থাকেন নেইমার। ডাক্তার মাঠে গিয়ে যখন শুশ্রূষা করছিলেন তখনও তার চোখ থেকে অশ্রু গড়িয়ে পড়ছিল। পরে স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়ার সময়ও কান্নারত নেইমার হাত দিয়ে মুখ ঢাকেন। এমন মারাত্মক ফাউলের জন্য তৎক্ষণাৎ রেফারি মেন্দেজকে হলুদ কার্ড দেখালেও পরে ভিএআর দেখে পরিবর্তন করে লাল কার্ড দেন। ভিডিও রিপ্লেতে দেখা যায়, মেন্দেজ দুই পা দিয়ে সরাসরি নেইমারের বাঁ পায়ের গোড়ালিতে আঘাত করেন। তার দুই পায়ের মাঝে নেইমারের বাঁ গোড়ালি আটকে গিয়েছিল প্রায়। পুরো ম্যাচে মোট ছয়বার কড়া ট্যাকেলের শিকার হন নেইমার।

নেইমারের চোট কতটা গুরুতর, কতদিন তাকে বাইরে থাকতে হবে, এ বিষয়ে পিএসজি এখনও কিছু জানায়নি। ম্যাচ শেষে পিএসজি কোচ টমাস টুখেল বলেছেন, সোমবার স্ক্যানের পর বোঝা যাবে নেইমারের আঘাতের প্রকৃত অবস্থা। তিনি বলেন, ‘সে (নেইমার) এখন ফিজিও ও চিকিৎসকদের সঙ্গে আছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বোঝা যাবে, চোট কতটা গুরুতর।’ তবে নেইমারের কান্না দেখে আশঙ্কা করা হচ্ছে, তার গোড়ালি হয়তো ভেঙেও যেতে পারে। নেইমার এমনিতেই ইনজুরিপ্রবণ। পায়ের মেটাটারসেল হাড়ে দু’বার বড় ধরনের চোট পেয়েছেন তিনি। এ ছাড়া গোড়ালির লিগামেন্টে চোট পেয়ে গত বছর লম্বা সময় মাঠের বাইরে ছিলেন। আবারও হয়তো লম্বা সময়ের জন্য ছিটকে গেলেন তিনি

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.