বিতর্কিত বাজেট নিয়ে ক্ষমা চাইলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

0
71
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস

বিতর্কিত ‘মিনি-বাজেট’ নিয়ে ক্ষমা চেয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস বলেছেন, আমি দুঃখ প্রকাশ করছি। উচ্চ করের সমস্যা মোকাবিলা করে জ্বালানির দামে জনগণকে সহায়তা করতে চেয়েছি আমি। কিন্তু আমরা তাড়াহুড়ো করে ফেলেছি।

সোমবার বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দুঃখ প্রকাশ করে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি কি এখন কেবল নামেই প্রধানমন্ত্রী কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে ট্রাস বলেন, দিক বদলানো দরকার বুঝতে পেরেই তিনি হান্টকে নিয়োগ দিয়েছেন। তাঁর নীতির প্রভাব নিয়ে জানতে চাইলে টোরি এ প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি বুঝতে পেরেছেন যে দেশজুড়ে পরিবারগুলোর জন্য এটা ‘খুবই কষ্টসাধ্য’ হতো, তবে তাদের সহায়তার জন্য যা করা দরকার তা তিনি করবেন।

দল ও দেশের নেতৃত্ব কাঁধে নিয়েছেন দেড় মাসও হয়নি। এর মধ্যেই ট্রাস দলীয় অনেক আইনপ্রণেতার অসন্তোষের মুখে পড়েছেন। চলতি সপ্তাহে তাঁরা তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করতে পারেন বলে খবরও বেরিয়েছে।

সোমবার ট্রাস বলেছেন, তিনিই আগামী নির্বাচনে কনজারভেটিভদের নেতৃত্ব দেবেন। আমি থাকছি, কেননা আমি দেশকে সেবা করতে নির্বাচিত হয়েছি। আর সেটা করতে আমি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ বলেছেন তিনি।

এদিকে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী সাধারণ নির্বাচনে তিনি কনজারভেটিভ দলের নেতৃত্ব দিতে চান লিজ ট্রাস। তবে তাঁর নিজ দলের মধ্যেই পদত্যাগের জন্য ব্যাপক চাপ আসতে শুরু করেছে। মিনি বাজেট বিনিয়োগকারীদের আস্থা নষ্ট করেছে এবং দলের ভেতরে-বাইরে তাঁর অবস্থানে নাড়া দিয়েছে। এ বাজেটের জেরে বরখাস্ত করা হয়েছে অর্থমন্ত্রী কোয়াসি কোয়ার্টেংকে। পাশাপাশি অর্থবাজারেও সৃষ্টি হয়েছে বিশৃঙ্খলা।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর ট্রাস ও তাঁর সাবেক অর্থমন্ত্রী কোয়াসি একটি নতুন ‘উন্নয়ন পরিকল্পনা’ ঘোষণা করেছিলেন। তাতে ৫০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ কর ছাড়ের পাশাপাশি জাতীয় বীমা পরিকল্পনা ও স্ট্যাম্প শুল্কে ছাড় দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু এই পরিকল্পনা বাজারকে এমন মাত্রায় ধাক্কা দেয় যে, ব্যাংক অব ইংল্যান্ড বাজার চাঙ্গা করতে ৬৫ বিলিয়ন পাউন্ডের (৭৩ বিলিয়ন ডলার) একটি কর্মসূচি নিয়ে হস্তক্ষেপ করতে বাধ্য হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.