বার্সাও জয়ে ফিরল, মেসিও ইনজুরিতে পড়লেন

0
233
ছবি: গোল

মৌসুমের শুরুতেই ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি মেসি। দলও হার দিয়ে মৌসুম শুরু করে। এরপর ইনজুরি কাটিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে ফেরেন মেসি। কিন্তু দল জয় পায়নি। পরে লা লিগায় মেসিকে নিয়েও গ্রানাডার বিপক্ষে হারে বার্সেলোনা। লিগে ২৫ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বাজে শুরু করে। মঙ্গলবার রাতের ম্যাচে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ঘরের মাঠে বার্সেলোনা ২-১ গোলের জয় পেয়েছে। কিন্তু মেসি আবার চোটে ছিটকে গেছেন।

ম্যাচের প্রথমার্ধেই বার্সেলোনা ২-০ গোলের লিড নেয়। শুরুতেই ওই দুই গোল করে কাতালানরা। ফ্রান্স ফরোয়ার্ড অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান ম্যাচের ছয় মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন। এরপর ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার আর্থার মেলো ১৫ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোল করেন। প্রথমার্ধের শেষ সময়ে এক গোল শোধ দেয় ভিয়ারিয়াল।

বার্সার সামনে তখনও দুশ্চিন্তা। দ্বিতীয়ার্ধে ভিয়ারিয়ালের সামনে সমতায় ফেরা কিংবা জয় তুলে নেওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে বার্সা দলের সেরা তারকা মেসিকে আর পেল না। থাইয়ের মাংসপেশির চোট পাওয়ায় দ্বিতীয়ার্ধে তাকে মাঠেই নামাননি বার্সা কোচ ভালভার্দে। ইনজুরি কাটিয়ে ফেরা উসমান ডেম্বেলে মাঠে নামেন। কিন্তু তিনিও দেখার মতো কিছু করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত কষ্টের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সেলোনা।

ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ ভালভার্দে অবশ্য বলেন যে, মেসির ইনজুরি বড় কিছু নয়। তাকে সতর্কতার জন্য তুলে নেওয়া হয়েছিল। সাবেক অ্যাথলেটিকো বিলবাও কোচ ভালভার্দে বলেন, ‘যখন মেসির কিছু হয় ফুটবল বিশ্ব থেমে যায়। তার ইনজুরি দেখে বড় কিছু মনে হয়নি। সতর্কতা অবলম্বন করে তাকে আমরা তুলে নিয়েছিলাম।’ এছাড়া মৌসুম খারাপ গেলেও ঘরের মাঠে বার্সেলোনা ভালো খেলছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। যদিও ভিয়ারিয়াল কঠিন পরীক্ষা নিয়েছে বলে স্বীকার করেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে