ফলো অনে পড়ছে না বাংলাদেশ

0
265
সাকিব হাল ধরতে পারেননি।

 

চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে চাপে পড়েছে বাংলাদেশ

প্রথম ইনিংসে আফগানিস্তানের সংগ্রহ আর উইকেটের অবস্থা দেখে বিপদ আঁচ করেছিলেন অনেকেই। ব্যাটিংয়ে কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে বাংলাদেশকে। চট্টগ্রাম টেস্টে আজ দ্বিতীয় দিনে সে কঠিন পরীক্ষাই দিতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। ১০০ রান তোলার আগেই নেই ৫ উইকেট!

কোনো রান তোলার আগেই ইনিংসের চতুর্থ বলে ফিরে গিয়ে পতনের শুরুটা করেছিলেন সাদমান ইসলাম। এরপর লিটন দাস ও সৌম্য সরকার মিলে দ্বিতীয় উইকেটে ১১৪ বলের জুটিতে দেখিয়েছেন ধৈর্যের পরাকাষ্ঠা। এ জুটিতে ৩৮ রান উঠলেও মনে হয়েছিল উইকেটে জমে গেছেন দুই ব্যাটসম্যান। কিন্তু ৬৬ বলে ১৭ রান করা সৌম্য ফেরা দিয়ে মড়ক লাগা শুরু হয় বাংলাদেশের ইনিংসে। লিটন দাস, সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমদের কেউ এরপর ইনিংস টানতে পারেননি। ৫ উইকেটে ৮৮ রান তুলে চা বিরতিতে গিয়েছে বাংলাদেশ। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ১৪৪। ফলো অন এড়াতে ১৪৩ রান করতে হতো বাংলাদেশকে। ৫২ রানে ফিরেছেন মুমিনুল। নবীকে তুলে মারতে গিয়ে আউট হন তিনি।

৩৩ রানে ফিরেছেন লিটন দাস।

কাল প্রথম দিনের খেলা শেষে বাংলাদেশের স্পিনার তাইজুল ইসলাম বলেছিলেন, আফগান বোলারদের ধৈর্য কম। ওরা টেস্টে ভালো করতে পারবে কি না সন্দেহ। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং সাক্ষ্য দিচ্ছে, আফগান বোলারদের ধৈর্য পরীক্ষা নেওয়ার চেষ্টাও তাঁরা করছে না! সাদমানের আউটের কথাই ধরুন। পেসার ইয়ামিন আহমদজাইয়ের অফ স্টাম্পের বাইরে নিখুঁত লেংথের ডেলিভারিটি ছাড়তে পারতেন এ ওপেনার। উইকেট যেহেতু বিপজ্জনক তাই বল ছেড়ে ধৈর্য পরীক্ষা নিতে পারতেন সাদমান।

শুরুতেই ফিরছেন সাদমান।

লিটন ও সৌম্যর জুটিতে এ পরীক্ষা নেওয়ার চেষ্টার প্রমাণ ছিল। কিন্তু দুই আফগান স্পিনার মোহাম্মদ নবী ও রশিদ খানকে আড়াআড়ি খেলার চেষ্টা করে আউট হয়েছেন সৌম্য ও লিটন। রান তোলার তাগিদ থেকেই শট খেলার চেষ্টা করেছিলেন দুজন। কিন্তু স্কোরবোর্ড ও টেস্টের সময়ে তাকিয়ে আরেকটু ধৈর্য ধরাই যেত। নবীর বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন সৌম্য। আর রশিদ খানের শর্ট লেংথের বল পুল করতে গিয়ে আউট হন লিটন (৬৬ বলে ৩৩)।

মুশফিক টিকেছেন মাত্র ২ বল।

আফগানিস্তানের সেরা স্পিনার রশিদ খান বোলিংয়ে এসেছেন দ্বিতীয় সেশনে। নিজের পঞ্চম ওভারেই বাংলাদেশকে ফলো অনের শঙ্কায় ফেলে দেন এ লেগি। তিন বলের ব্যবধানে বাংলাদেশের দুই স্তম্ভ সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমকে ফেরান রশিদ। সাকিব (১১) রিভিউ নিয়েও এলবিডব্লিউ থেকে বাঁচতে পারেননি। এক বল পরই মুশফিক (০) ক্যাচ দেন শর্ট লেগে। বল তাঁর জুতোর মাথায় লেগে জমা পড়ে ইব্রাহিম জাদরানের হাতে।

রশিদ খানের বলে এলবিডব্লু হয়েছেন সাকিব।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে