প্রাণ বাঁচাতে দেশে ফিরতে চান সৌদিতে থাকা ৩৫ নারী

0
214
ভিডিও বার্তা থেকে নেওয়া স্কিনশট

সুমি, হোসনার পর বাঁচার আকুতি জানিয়ে ভিভিওবার্তা পাঠিয়েছেন সৌদি আরবে নির্যাতিত আরও ৩৫ নারী। দেশটিতে গৃহকর্মীর কাজে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হয়ে কর্মক্ষেত্র থেকে পালিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়েন তারা।

গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে নির্যাতনের শিকার এই নারীরা রয়েছেন সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের সেফ হোমে। কেউ সাত মাস, কেউ দুই মাস ধরে আটকে রয়েছেন সেখানে। দেশে ফিরতে চান তারা।

তাদের পাঠানো ভিডিওবার্তায় দেখা যায়, একজন নারী তাদের দুর্দশার বর্ণনা দিচ্ছেন। পাশে থাকা অন্য নারীরা বিলাপ করে তাদের ওপর চালানো নির্যাতনে কথা বলছেন। প্রাণ বাঁচানোর আকুতি জানাচ্ছেন।

ভিডিও বার্তায় একজন নারী বলেন, ‘প্রবাসী, দেশবাসী ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলছি। আমরা ৩৫ জন নারী সৌদি আরবে নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে পুলিশের কাছে ধরা দিয়েছি। কয়েক মাস ধরে অনেক কষ্টে এখানে আছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন, আমাদের জীবন ভিক্ষা চাই।’

তিনি বলেন, ‘এখানে মা, বোনেরা আছেন। তাদের অনেকে দেশে সন্তান রেখে এসেছেন। তাদের দেখার মতো কেউ নেই। এখানে অনেকের মা নেই, বাবা নেই। তাদের কে দেখবে? এখানে অনেকে এসে মা হারিয়েছে, সন্তান হারিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে একটাই অনুরোধ, আমাদের জীবন ভিক্ষা দেন। আমাদের এখান থেকে উদ্ধার করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনার পায়ে পড়ি। আমাদের জীবন ভিক্ষা দেন।’

সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসের রিয়াদ কনস্যুলেটের শ্রম কাউন্সিলর মেহেদি হাসানের সঙ্গে যোগাযোগ করে এ বিষয়ে বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে দূতাবাস সূত্র জানিয়েছে, ভিডিও বার্তা পাঠানো নারীরা রিয়াদের সেফ হোমে রয়েছেন। তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। ৩৫ নারীর সবার পরিচয় জানা যায়নি। ১৩ জনের নাম ও পাসপোর্ট নম্বর জানা গেছে ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির মাধ্যমে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.