পুরো তেজগাঁওই এখন মহাখালী টার্মিনাল!

0
309
তেজগাঁও। ফাইল ছবি

রাজধানীর মহাখালী টার্মিনাল এখন তেজগাঁও এলাকাজুড়ে। টার্মিনালের বাস এখন দাঁড়িয়ে আছে একদিকে টার্মিনাল থেকে তিব্বত পার হয়ে লাভ রোড ক্রসিং পর্যন্ত। অন্যদিকে মহাখালী ক্রসিং এবং গুলশান লিংক রোডের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ জুড়ে সড়কের ওপর।

এর বাইরে তেজগাঁওয়ের ভেতরে বিভিন্ন অলি-গলিতে সড়কের ওপর অর্ধেকজুড়েই দাঁড়িয়ে আছে বাস। ফলে দিনেরাতে সব সময়ই লেগে থাকছে তীব্র যানজট।

সরেজমিনে দেখা যায়, মহাখালী টার্মিনালের বাস তেজগাঁও এলাকার বেশির ভাগ সড়কই দখল করে রেখেছে। যত্রতত্র বাসগুলো নিজেদের মতো রাস্তা বন্ধ করে ডানে-বাঁয়ে মোড় নিচ্ছে। ফলে তেজগাঁও শিল্প এলাকার সড়কে সাধারণ যানবাহনের চলাচলই দায় হয়ে পড়েছে।

মহাখালী টার্মিনাল এলাকা-সংশ্নিষ্ট পরিবহন সূত্র জানায়, ১৯৮৫ সালে নির্মিত মহাখালী টার্মিনালে বাসের ধারণক্ষমতা মাত্র আড়াইশ’। পরবর্তী সময়ে ধারণক্ষমতা ২৫টি বাড়ানো হয়। অথচ এখন এ টার্মিনাল থেকে প্রতিদিন প্রায় বারশ’ বাস ছেড়ে যায়। ফলে টার্মিনালের ভেতরে জায়গা হওয়ার কোনো সুযোগই নেই।

এ বিষয়টি নিয়ে প্রায় দেড় বছর আগে ঢাকা মহানগর পুলিশের সঙ্গে আলোচনার পর রাত ১০টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত রাস্তার পাশে এক লাইনে গাড়ি দাঁড়ানোর মৌখিক অনুমতি নেওয়া হয়। তবে এক লাইনে দাঁড়ানোর অনুমতি থাকলেও গাড়িগুলো দুই-তিন লাইনে দাঁড়াচ্ছে।

যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, এভাবে কোনো রাজধানীর কেন্দ্রস্থলে বাস টার্মিনাল দেখা যায় না। টার্মিনাল হয় মূল শহরের বাইরে এবং সংযুক্ত ছোট বাস সার্ভিস দিয়ে যাত্রীদের মূল টার্মিনালে নেওয়া হয়। কিন্তু ঢাকায় যানজট, জনভোগান্তি কোনো কিছু আমলে না নিয়ে কিছু মানুষের স্বার্থে এভাবে শহরের প্রাণকেন্দ্রে টার্মিনাল রাখা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.