পায়ের পাতা আর গোড়ালি ফাটছে?

0
599
প্রতীকী ছবি

শীতকালে বাতাসে আর্দ্রতা কমে যায়। ত্বক শুষ্ক হয়ে পড়ে। এই সময় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার না করলে ত্বক, বিশেষ করে পায়ের গোড়ালি বা পায়ের তলাও ফেটে যাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে পায়ের গোড়ালিতে ব্যথা ও জ্বালা-পোড়া করে, হাঁটতে সমস্যা হয়। ফাটা গোড়ালি নিয়ে হাঁটাচলা করতে গিয়ে ত্বকের ফাটা অংশে ধুলো লেগে পরিস্থিতি আরও মারাত্মক হয়ে ওঠে।

এর জন্য বাজার থেকে কেনা নানা রকমের ক্রিম হয়তো ব্যবহার করছেন। কিন্তু সেগুলোতে ব্যবহৃত রাসায়নিকের জন্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার একটা আশঙ্কা থেকেই যায়। আপনি চাইলে কয়েকটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন ঘরোয়া পদ্ধতি কাজে লাগিয়ে গোড়ালি ফাটার সমস্যা থেকে সহজেই রেহাই পেতে পারেন।

নারকেল ও কলার ফুট মাস্ক 

তৈরি করতে যা যা লাগবে: টুকরো করে কাটা কলা, লম্বা করে কাটা ৩-৪ টুকরো নারকেল।

যেভাবে তৈরি করবেন: টুকরো করা কলা ও নারকেল একসঙ্গে নিয়ে ব্লেন্ড করে নিন বা ভালোভাবে পিষে নিন। এর পর এই মিশ্রণটি পায়ের ফাটা জায়গায় ভালো করে লাগিয়ে নিন। প্যাক শুকিয়ে গেলে সামান্য উষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। যদি হাতের কাছে তাজা নারকেল না থাকে তবে কলা চটকে নিয়ে তাতে ২-৩ চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করেও লাগাতে পারেন।

চাল বাটা ও তেলের ফুট স্ক্রাবার

পা ফাটার সমস্যার সমাধানে সবচেয়ে কার্যকরী পদ্ধতি হচ্ছে প্রাকৃতিক স্ক্রাবার ব্যবহার। ঘরোয়াভাবে তৈরি এই স্ক্রাবটি প্রতিদিন ব্যবহার করে খুব দ্রুত পা ফাটার সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

তৈরি করতে যা যা লাগবে: ২-৩ চামচ চাল, অলিভ অয়েল, সাদা ভিনেগার ও মধু।

যেভাবে তৈরি করবেন: প্রথমে চাল একটু ভিজিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে ভালো করে বেটে নিন, তবে খুব মিহি করে নয়। এরপর এর সঙ্গে ৩ চামচ ভিনেগার আর ২ চামচ মধু দিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এবার একটি বড় পাত্রে সামান্য উষ্ণ গরম পানিতে ১০-১৫ মিনিট পা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ভেজা পায়ে ঘন পেস্টটি ভালো করে মালিশ করুন। মালিশ করার পর ১০ মিনিট রেখে দিন। এরপর সামান্য উষ্ণ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ভালো করে পা মুছে নিন। এরপর সামান্য অলিভ অয়েল গরম করে নিয়ে পায়ে মালিশ করুন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই প্যাক ব্যবহার করলে পা ফাটায় দ্রুত ভালো ফল পাবেন।

গ্লিসারিন ও গোলাপ জলের ফুট মাস্ক

তৈরি করতে যা যা লাগবে: লবণ, লেবুর রস, গ্লিসারিন, গোলাপ জল ও সামান্য উষ্ণ গরম পানি।

যেভাবে তৈরি করবেন: একটি বড় পাত্রে ২ লিটার সামান্য উষ্ণ গরম পানি নিয়ে তাতে ১ টেবিল চামচ লবণ,  ১টি আস্ত লেবুর রস, ১ কাপ গোলাপ জল দিয়ে এতে অন্তত ১০-১৫ মিনিট পা ভিজিয়ে রাখুন। এর পর খসখসে কিছু একটা দিয়ে যেমন, পেডিকিউরের পিউমিস স্টোন দিয়ে পায়ের গোড়ালি ভালো করে ঘষে শক্ত, মোটা ও মরা চামড়া তুলে পা ধুয়ে ফেলুন।

এরপর ১ চামচ লেবুর রস, ১ চামচ গ্লিসারিন ও ১ চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে পায়ে লাগান। এভাবে সারা রাত রেখে দিন। সকালে উঠে সামান্য উষ্ণ গরম পানি দিয়ে পা ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত ২-৩ বার ব্যবহারে সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই পা ফাটা একেবারে সেরে যাবে। সূত্র: জিনিউজ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.