পলাশে ডাকাতেরা লুটে নিল ৯০ ভরি সোনা

0
195
নরসিংদীর পলাশের ঘোড়াশাল বাজারে ৫টি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ছাড়া একটি চালের দোকানের সিন্ধুক ভেঙে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নেওয়া হয়েছে।

নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল বাজারে ৫টি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ছাড়া একটি চালের দোকানের সিন্ধুক ভেঙে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নেওয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে ৬টি দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন বলেন, ডাকাতির ঘটনায় প্রায় ৯০ ভরি স্বর্ণালংকার, ২০০-৩০০ ভরি রুপা ও নগদ ১৫ লাখ টাকা লুট হওয়ার খবর সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ।

তবে ওই বাজারের ব্যবসায়ীদের দাবি, ডাকাতির ঘটনায় ১০৯ ভরি স্বর্ণালংকার, ২০০-৩০০ ভরি রুপা ও ১৮ লাখ টাকা লুট হয়েছে।

ডাকাতের হামলায় দুই দোকান কর্মচারী আহত হয়েছেন। বলরাম ও রামজয় নামের ওই দুই দোকান কর্মচারীকে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

যেসব দোকানে ডাকাতেরা হানা দেয় সেগুলো হলো মুসলিম জুয়েলার্স, জনতা গয়না, প্রিয় জুয়েলার্স, মল্লিক জুয়েলার্স, মা শিল্পালয় ও ফারুক ব্রাদার্স নামের একটি চালের দোকান। চালের দোকানের সিন্ধুক ভেঙে ৩১ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৬ লাখ টাকা লুটে নেওয়া হয়। আশপাশের স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা নিরাপত্তার জন্য ওই চালের দোকানে স্বর্ণালংকারগুলো রেখেছিলেন।

পুলিশ ও বাজারের ব্যবসায়ীরা বলছেন, গতকাল রাত একটার দিকে ২০/৩০ জনের একদল অস্ত্রধারী ডাকাত প্রায় একই সময়ে বাজারের ৫টি স্বর্ণের দোকানে হানা দেন। এ সময় তাঁরা ডিবি পরিচয়ে দোকানে থাকা লোকজন ও বাজারের পাহারাদারদের ধরে একটি ঘরে আটকে রাখেন। তাদের মারধরও করা হয়। পরে রাত একটা থেকে তিনটা পর্যন্ত এই দুই ঘণ্টা সময়ে ৫টি স্বর্ণের দোকানের তালা ও সিন্ধুক গ্যাস মেশিনে কেটে ডাকাতি করেন তাঁরা। ডাকাতি শেষে বাজারের পাশের ঘাট থেকে শীতলক্ষ্যা নদীতে স্পিডবোটে করে তাঁরা পালিয়ে যান। পরে বাজার কমিটির লোকজন ও ব্যবসায়ীরা পুলিশে খবর দেন।

খবর পেয়ে সকালে নরসিংদীর পুলিশ সুপার (এসপি) প্রলয় কুমার জোয়ারদারসহ জেলার সিআইডি, পিবিআই ও গোয়েন্দা শাখার কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এসপি প্রলয় কুমার জোয়ারদার সাংবাদিকদের বলেন, ডাকাতির এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক দল তদন্তে নেমেছে। তদন্তের মাধ্যমে খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.