নেপালের সঙ্গেও এখন আর পারে না বাংলাদেশ

0
211
আজ জিততেই হবে বাংলাদেশকে, কিন্তু প্রথমার্ধে পিছিয়ে আছে দল। ফাইল ছবি
ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে নেপালের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ। এই হারে দক্ষিণ এশিয়ান গেমসের ফুটবলে ৫ দলের মধ্যে তৃতীয় হয়েছে বাংলাদেশ।

দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে ফুটবলের ফাইনালে খেলতে হলে নেপালের বিপক্ষে প্রয়োজন ছিল জয়। কিন্তু জয় তো দূরের কথা, ড্রও করতে পারেনি বাংলাদেশ। ১-০ গোলের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে জামাল ভূঁইয়াদের। এই হারে ৫ দলের মধ্যে তিন নম্বর হয়ে এসএ গেমস শেষ করল বাংলাদেশ। অর্থাৎ গতবারের মতো এবারও অর্জন সান্ত্বনার ব্রোঞ্জ। গেমস যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল দেশের ফুটবলের মানদণ্ড।

পাঁচ ডিফেন্ডার নিয়ে একাদশ সাজিয়েছিলেন জেমি ডে। এ ছাড়া তিন সেন্টারব্যাকের সামনে হোল্ডিং মিডফিল্ডার হিসেবে খেলেছেন প্রথাগত লেফটব্যাক সুশান্ত ত্রিপুরা। দেখে মনে হচ্ছিল হার এড়ানোই লক্ষ্য। কৌশলগত কারণে তা হতেই পারে। কিন্তু রক্ষণভাগ জমাট রেখে জয় পাওয়ার জন্য যে গোলের প্রয়োজন, সে ক্ষুধা দেখা যায়নি ফরোয়ার্ড নাবীব নেওয়াজ জীবন, সাদ উদ্দিনদের শরীরী ভাষায়। জীবন যেন নেপাল সেন্টারব্যাকের গায়ের সঙ্গে দাঁড়িয়ে থেকে বল না নিতে পারলেই বাঁচেন। দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি সময়ে তাঁর বদলি হিসেবে মোহাম্মাদ ইব্রাহিমকে পাঠানো হলে আক্রমণে কিছুটা গতি এলেও তা স্বাগতিকদের ভয় ধরানোর মতো কিছু ছিল না।

অথচ গতকাল মালদ্বীপের বিপক্ষে খেলার পর আজ টানা দ্বিতীয় ম্যাচ খেলায় নেপালিজরা ছিল ক্লান্ত। কিন্তু সে সুযোগটা নিতে পারেননি জামালরা। তাঁদের খেলা কখনোই প্রমাণ করতে পারেনি, ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য বাঁচামরার লড়াই। প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের পরীক্ষা নিতে পারেননি একবারও। বরং বল পায়ে রাখতে না পারা, লম্বা থ্রোইনে বারবার ব্যর্থ হয়েও কৌশল না বদলানো ছিল দৃষ্টিকটু। দুই উইং থেকে অগোছালো ক্রসেই শেষ হয়েছে বাংলাদেশের আক্রমণ। উল্টো ১১ মিনিটে ম্যাচের মীমাংসা করে দিয়েছেন সুনীল বাল।

এই হারকে নেপাল যুব দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ জাতীয় দলের হারই বলা যায়। অনূর্ধ্ব-২৩ দলের মোড়কে প্রায় জাতীয় দল নিয়েই গেমসে গিয়েছিল বাংলাদেশ। অথচ গেমসের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ভুটানের বিপক্ষে হারে শুরু। দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে ড্র, তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একমাত্র জয়। আর আজ শেষ ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে হার। এই নিয়ে সাফ ফুটবলের পর এসএ গেমসেও নেপালের কাছে হেরে বিদায় হলো বাংলাদেশ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে