ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা সেই কিশোরী ঝুঁকিতে

0
158

যশোরের মনিরামপুরে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা সেই কিশোরীকে বুধবার রাতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কম বয়সে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় গর্ভের সন্তান ও তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরের কথা বলা হলেও অর্থাভাবে সেখানে নিতে পারছেন না স্বজনরা। মেয়েটি বর্তমানে ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

অভিযুক্ত উপজেলা পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া এ মামলায় বর্তমানে কারাগারে।

মেয়েটির স্বজন অভিযোগ করেন, গোলাম কিবরিয়ার বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করত কিশোরী। বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে গত জানুয়ারি থেকে তাকে ধর্ষণ করে কিবরিয়া। এতে ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে স্বজনরা আইনের আশ্রয় নেন।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক নিলুফার ইয়াসমিন এমিলি জানান, কিশোরী হওয়ার কারণে স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসব হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। গর্ভের সন্তানের বৃদ্ধিও কম।

তিনি আরও বলেন, মা হতে যাওয়া মেয়েটিই এখনও শিশু। এ কারণে তার অবস্থা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মনিরামপুর থানার এসআই সৌমেন বিশ্বাস জানান, গত ১ জুলাই মেয়েটির বাবা মামলা করলে ওই দিনই অভিযুক্তকে আটক করা হয়। বর্তমানে সে কারাগারে।

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সালাউদ্দিন শিকদার জানান, আসামির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। শিশুটি ভূমিষ্ট হওয়ার পর তার সঙ্গে সেটি মেলানো হবে। তাহলে মামলার রহস্য উন্মোচন হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে