‘দুদকে এখন আর তদবির বাণিজ্য নেই’

0
247
দুদকের অকালপ্রয়াত চার কর্মকর্তা-কর্মচারীর স্মরণে রোববার শোকসভার আয়োজন করা হয়। ছবি: দুদক

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দুই কর্মকর্তা ও দুই কর্মচারীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। রোববার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে শোকসভায় তিনি প্রয়াত চারজনের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

গত জুলাই থেকে এ পর্যন্ত মারা গেছেন- দুদক পরিচালক মো. আবু সাঈদ, সহকারী পরিচালক সরদার মঞ্জুর আহম্মেদ, কনস্টেবল আবদুল জলিল মণ্ডল ও মজিবুর রহমান। তাদের স্মরণে এ শোকসভার আয়োজন করা হয়।

সভায় দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দুদকে তদবির নিয়ে অনেক কথা ছিল। আমি দৃঢ়ভাবেই বলতে পারি, আপনাদের সবার সহযোগিতায় বিগত সাড়ে তিন বছরে দুদকের তদবির বাণিজ্য শূন্যে নামিয়ে আনা হয়েছে। দুদকে এখন আর তদবির বাণিজ্য নেই। কেউ তদবির করতে সাহসও পান না। দুদক কর্মকর্তাদের পেশাদারিত্ব প্রশংসাযোগ্য। এই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের মধ্যে কোনো বিরোধ নেই, কোনো রাজনীতি নেই।

সভায় ইকবাল মাহমুদ আরও বলেন, মানুষের মৃত্যু অবধারিত, তবে এই মৃত্যু মেনে নেওয়া কঠিন। প্রতিটি মৃত্যুই আমাদের কিছু শিক্ষা দেয়। প্রয়াত কর্মকর্তা ও কর্মচারী কীভাবে সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন, কীভাবে তারা নিজের পরিবারের সদস্যদের এক পাশে রেখে আত্মত্যাগ করেছেন- আজ তা শুনছি। আসুন, আমরা সবাই তাদের মতো সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে পরবর্তী প্রজন্মের ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে কাজ করি।

উপস্থিত কর্মকর্তাদের উদ্দেশে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, অনেকের ধারণা দুদকে যারা চাকরি করেন তাদের যথেষ্ট টাকা-পয়সা, গাড়ি-বাড়ি রয়েছে। কিন্তু আজ যে সত্য আমাদের সামনে সেটি হলো, মরহুম পরিচালক আবু সাঈদ ও সহকারী পরিচালক সরদার মঞ্জুর আহম্মেদের কোনো অর্থবিত্ত বাড়ি-গাড়ি নেই। তাদের সততার কাছে অনেকের ওইসব ধারণা পরাজিত হয়েছে। কমিশনের অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারীই সততার সঙ্গে জীবনযাপন করছেন।

শোকসভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন দুদক কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখ্‌ত, মহাপরিচালক আ ন ম আল ফিরোজ, পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন, উপপরিচালক তালেবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে