দুদকের মামলায় শামীম ও খালেদ ৭ দিনের রিমান্ডে

0
244
জি কে শামীমকে আজ রোববার ঢাকার আদালতে হাজির করা হয়।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। এ ছাড়া দুদকের মামলায় যুবলীগের কথিত নেতা ও প্রভাবশালী ঠিকাদার জি কে শামীমের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ রোববার শুনানি নিয়ে ঢাকা মহানগর জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালত এই আদেশ দেন।

খালেদ ও শামীমকে আদালতে হাজির করে ১০ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছিল। আদালত ৭ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন আদালতকে বলেন, প্রাথমিক অনুসন্ধানে জি কে শামীমের ২৯৭ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের তথ্য জানা গেছে। অসংগতিপূর্ণ এই সম্পদের উৎস জানার জন্য শামীমকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি।

খালেদের ব্যাপারে দুদকের আইনজীবী মোশারফ হোসেন আদালতকে বলেন, প্রাথমিক অনুসন্ধানে খালেদের ৫ কোটি টাকার বেশি অবৈধ সম্পদ অর্জনের তথ্য জানা গেছে। এই অসংগতিপূর্ণ সম্পদের উৎস জানার জন্য তাঁকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি।

শামীমের আইনজীবীরা আদালতের কাছে দাবি করেন, শামীম কোনো অসংগতিপূর্ণ সম্পদ অর্জন করেননি। যে টাকা তিনি আয় করেছেন, তা তাঁর আয়কর বিবরণীতে উল্লেখ আছে। শামীম হাজার হাজার কোটি টাকার সরকারি প্রকল্পের কাজ করেন।

খালেদের আইনজীবীরা আদালতের কাছে দাবি করেন, খালেদ কোনো অসংগতিপূর্ণ সম্পদ অর্জন করেননি। তিনি আগে ২৪ দিন রিমান্ডে কাটিয়েছেন। যদি জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন হয়, তাহলে তাঁকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেওয়া হোক।

খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকেও আজ রোববার আদালতে হাজির করা হয়। ফাইল ছবি

আদালত উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে শামীম ও খালেদকে সাত দিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেন।

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ থাকার অভিযোগে শামীম ও খালেদের বিরুদ্ধে ২১ অক্টোবর মামলা করে দুদক। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১-এ মামলা দুটি করা হয়।

শামীমের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের উপপরিচালক মো. সালাউদ্দিন। মামলায় শামীমের বিরুদ্ধে ২৯৭ কোটি ৯ লাখ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে।

খালেদের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের আরেক উপপরিচালক জাহাঙ্গীর আলম। মামলায় খালেদের বিরুদ্ধে ৫ কোটি ৫৮ লাখ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরুর পর শামীম ও খালেদকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। দুজনই এখন কারাগারে আছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.