‘দাদা সাহেব ফালকে পুরস্কার পেলেন মহেশ বাবু ও আনুশকা শেট্টি

0
665
সুপারস্টার মহেশ বাবু। ছবি: টুইটার

সম্প্রতি দক্ষিণের সিনেমাগুলো নিয়ে ‘দাদা সাহেব ফালকে অ্যাওয়ার্ড সাউথ’ নামে পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়েছে। এ বছর দক্ষিণের সেরা অভিনেতা হয়েছেন সুপারস্টার মহেশ বাবু। ‘ভারত আনে নেনু’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি এ পুরস্কার পেলেন। আর ‘বাহুবলী’র দেবসেনা আনুশকা শেট্টি হয়েছেন সেরা অভিনেত্রী। ‘ভাগমাতি’ সিনেমার জন্য তিনি এ পুরস্কার পেলেন।

গতকাল শুক্রবার রাতে তেলেঙ্গানার রাজধানী হায়দারাবাদে এক অনুষ্ঠানে ‘দাদা সাহেব ফালকে অ্যাওয়ার্ড সাউথ’-এর পুরস্কার দেওয়া হয়।

এ বছর সেরা খল অভিনেতা হয়েছেন ‘আরভিন্দা সামেথা’ ছবির জন্য জগপতি বাবু। ‘মহানাটি’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য দক্ষিণের আউট স্ট্যান্ডিং পারফরম্যান্স অব ফিমেল হয়েছেন কীর্থি সুরেশ। আর বছরের আলোচিত ছবি কেজিএফ-১ এর জন্য আউটস্ট্যান্ডিং পারফরম্যান্স অব মেল পুরস্কার পেয়েছেন যশ। ‘রাঙ্গাস্থালাম’ ছবির জন্য সেরা পরিচালক হয়েছেন সুকুমার। রামচরন ও সামান্থা অভিনীত ‘রাঙ্গাস্থালাম’ ছবিটি বেষ্ট মিউজিকেও পুরস্কার পেয়েছে। ‘আরএক্স ১০০’ ছবির জন্য সেরা নবাগত অভিনেত্রী অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন পায়েল রাজপুত।

মহেশ বাবু
যুক্তরাজ্য পড়াশোনা করা মহেশ বাবুকে হঠাৎই ছাত্র থেকে অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হয়ে যেতে হয়। বাবার মৃত্যুতে তিনি এ দায়িত্ব সামলান। দায়িত্ব নিয়েই নানান সমস্যার মধ্য পড়েন মহেশ। এর মধ্য রাজনীতির সমস্যা আর ট্রাফিক জ্যাম কি করে সমাধান করতে হয় তা দেখিয়ে দেন। কোরাটালা শিবা পরিচালিত এই ছবিতে আরও আছেন কিয়ারা আদভানি ও প্রকাশ রাজ।

মহেশ বাবুর ‘ভারত আনে নেনু’র পর ‘মহর্ষি’ ছবিতে অভিনয় করেন। ছবিতে কৃষকদের সমস্যা নিয়ে কাজ করেন তিনি। কৃষকদের নানা সমস্যা সমাধান করে দারুণভাবে প্রশংসিত হন।

সুপারস্টার মহেশের প্রায় সব ছবিতে এক একটা বার্তা থাকে। ‘ভারত আনে নেনু’তে তিনি রাজ্যের রাজনীতির এবং ট্রাফিক সমস্যার সমাধানে আইন করেন। আইন না মানলে ২০ হাজার রুপি পর্যন্ত জরিমানার বিধান রাখা হয়। এ ছবির পরেই সম্প্রতি ভারতের এক রাজ্য সরকার আইন করে ট্রাফিক আইন না মেনে চললে ১০ হাজার রুপি পর্যন্ত জরিমানার আইন করেছে।

আনুশকা শেট্টি। ছবি: টুইটার

আনুশকা শেট্টি
ভাগমাথি ছবিতে আইএস অফিসার আনুশকা শেট্টি। আনুশকা শেট্টি এ ছবির প্রাণ। ছবিতে ঈশ্বর প্রসাদ (জয়ারাম) একজন সৎ মন্ত্রী। তার পিএস আনুশকা। মন্ত্রীর আমলে চুরি যাওয়া বহুমূল্যের অনেক মূর্তি উদ্ধার করতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য সরকারের ওপর দায় চাপিয়ে নিজে পদত্যাগ করতে চান। সিবিআই ঘটনা তদন্ত করে। তদন্তে আনুশকাকে দোষী ধরা হয়। তবে আনুশকা জানতেন মূর্তি চুরির অর্থ কোথায় কীভাবে আছে। অর্থ উদ্ধারে আনুশকা আশ্রয় নেন নতুন এক পন্থার। চঞ্চলাকে ভাগমাতি নামের এক বাংলোতে রাখা হয়। পরিত্যক্ত বাংলোয় ভূত আছে বলে গ্রামবাসী বিশ্বাস করেন। চঞ্চলাকে সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর ঘটতে থাকে অদ্ভুত সব কাণ্ড। দেখলে মনে হবে নানরা রহস্য লুকিয়ে আছে ভাগমতি বাংলোয়। পরে মন্ত্রীকে শায়েস্তা করেই তিনি উদ্ধার করেন অর্থ। মুরালি শর্মা, উন্নি মুকুন্দান, আশা সারাথ ছবিতে অনবদ্য অভিনয় করেছেন।

কেজিএফ-১ এর জন্য আউটস্ট্যান্ডিং পারফরম্যান্স অব মেল পুরস্কার পেয়েছেন যশ। ছবি: টুইটার

কন্নড় অভিনেতা ‘যশ’-এর সেরা সিনেমা ‘কোলার গোল্ড ফিল্ড কেজিএফ-চ্যাপ্টার ১ ’। কেজিএফের প্রধান চরিত্রে থাকা অভিনেতা যশের প্রথম সিনেমা কন্নড় রোমান্টিক সিনেমা ‘জানু’। মায়ের প্রতি সন্তানের ভালোবাসা কতটা কাজ করে এ ছবিতে তা দেখানো হয়েছে। ছবিতে যশের অভিনয়ের কারণে দক্ষিণের সেরা পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড পেলেন ‘মাস্টারপিস’, ‘গুগলি’, ‘স্ট্রেইট ফরওয়ার্ড’ অভিনেতা যশ। এখন, অপেক্ষা এর দ্বিতীয় পার্টের। ‘চ্যাপ্টার-২’ এর শুটিং প্রায় ৭০ শতাংশ শেষ হয়েছে।

দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার ভারতের সর্বোচ্চ চলচ্চিত্র পুরস্কার। সম্প্রতি দক্ষিণের সিনেমাগুলো নিয়ে সেরাদের ‘দাদা সাহেব ফালকে অ্যাওয়ার্ড সাউথ’ নামে পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়েছে।

দক্ষিণের আউট স্ট্যান্ডিং পারফরম্যান্স অব ফিমেল হয়েছেন কীর্থি সুরেশ। ছবি: টুইটার

ভারতীয় চলচ্চিত্রে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এ পুরস্কার দেওয়া হয়। চলচ্চিত্র জগতের ব্যক্তিত্ব দ্বারা গঠিত একটি কমিটি পুরস্কারপ্রাপ্তদের নাম নির্বাচন করেন। পুরস্কার হিসেবে একটি স্বর্ণকমল পদক, নগদ অর্থ ও একটি শাল প্রদান করা হয়।

দক্ষিণের সেরা নবাগত অভিনেত্রীর অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন পায়েল রাজপুত। ছবি: টুইটার

ভারতের চলচ্চিত্রে দাদা সাহেব ফালকের অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ দেশটির সরকার ১৯৬৯ সালে প্রথম এ পুরস্কার প্রচলন করে। দাদা সাহেব ফালকে ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে ১৯১৩ সালে ভারতের প্রথম পূর্ণ দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘রাজা হরিশচন্দ্র’ নির্মাণ করেন। তথ্যসূত্র: টুইটার, সাউথ মুভি, পিঙ্ক ভিলা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে