থাইল্যান্ডে শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্রে এলোপাতাড়ি গুলি, নিহত ৩৪

0
61

থাইল্যান্ডের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এক প্রদেশে শিশুদের জন্য পরিচালিত একটি দিবাযত্ন কেন্দ্রে এলোপাতাড়ি গুলিতে অন্তত ৩৪ জন নিহত হয়েছে। পুলিশের সাবেক এক কর্মকর্তা এই বন্দুক হামলা চালিয়েছেন বলে বৃহস্পতিবার দেশটির পুলিশের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন।

দেশটির পুলিশের উপ-মুখপাত্র আর্চন ক্রাইটং রয়টার্সকে জানিয়েছেন, গুলিতে ৩৪ জন নিহত হয়েছেন।

বিবিসি বলছে, থাই পুলিশের এক বিবৃতি জানানো হয়েছে, নিহতদের মধ্যে শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকরাও রয়েছেন। হামলাকারী শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্কদের গুলি ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছেন। ঘটনার পর থেকে হামলাকারী পলাতক রয়েছেন। তাকে ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে। তবে কী কারণে তিনি এই হামলা চালিয়েছেন তা এখনও স্পষ্ট নয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে সম্প্রতি চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। সর্বশেষ তাকে ব্যাংককে রেজিস্ট্রেশনকৃত একটি পিক-আপ ট্রাক চালাতে দেখা গেছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, নং বুয়া লামফু প্রদেশের একজন সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, নিহতদের মধ্যে ২৩ জন শিশু রয়েছে।

দেশটির সরকারের একজন মুখপাত্র বলেছেন, দিবাযত্ন কেন্দ্রে হামলার পর দেশটির সংশ্লিষ্ট সব সংস্থা এবং কর্তৃপক্ষ সতর্ক করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান ওচা। একই সঙ্গে অপরাধীকে দ্রুত গ্রেপ্তারের নির্দেশও দিয়েছেন তিনি।

থাইল্যান্ডের ওই অঞ্চলে দেশটির অন্যান্য এলাকার তুলনায় অস্ত্রের মালিকানার হার বেশি। কিন্তু সরকারি পরিসংখ্যানে বিপুল সংখ্যক অবৈধ অস্ত্র অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

থাইল্যান্ডে এ ধরনের ঘটনা খুবই কম। তবে ২০২০ সালে একজন সৈনিক অন্তত চারটি স্থানে হামলা চালান। এতে কমপক্ষে ২৯ জন নিহত এবং ৫৭ জন আহত হন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.