তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির জন্য আপিল করা হবে: কাদের

0
125
ওবায়দুল কাদের

২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় জড়িত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে উচ্চ আদালতে আপিলের সুযোগ আছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, মুফতি হান্নানের জবানবন্দিতে মাস্টারমাইন্ড হিসেবে তারেক রহমানের নামে এসেছে। তাঁর সর্বোচ্চ শাস্তির জন্য অবশ্যই আপিল করা হবে।

বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নির্মিত বেদিতে ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামলায় নিহত ব্যক্তিদের শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিএনপি ২১ আগস্টের মাধ্যমে রাজনীতির সম্পর্কের মধ্যে যে দেয়াল তুলে দিয়েছে, সেটি এড়িয়ে যাওয়া বা ভুলে যাওয়া সম্ভব নয়। সেদিন আওয়ামী লীগ সভাপতি আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘প্রাইম টার্গেট’ করেই হামলা চালানো হয়েছিল। আল্লাহর রহমতে তিনি বেঁচে গেছেন। তিনি যখন বেঁচে আছেন, ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের বিচার হয়েছে, ২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ডেরও বিচার হবে এ বাংলার মাটিতে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৫ আগস্ট আর ২১ আগস্টের হত্যাকাণ্ড একই সূত্রে গাঁথা। ২০০৪ সালের এই দিনে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধান টার্গেট করে সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে সন্ত্রাসীদের দিয়ে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে রক্তস্রোত বইয়ে দিয়েছিল বিএনপি-জামায়াত সরকার।

এর আগে সকাল নয়টায় দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এরপর সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নির্মিত বেদিতে ফুলেল শ্রদ্ধায় ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় নিহত ব্যক্তিদের স্মরণ করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা।

এ সময় সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবীর নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও এনামুল হক শামীম, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুরসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় নেতারা শ্রদ্ধা জানানোর পর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিট এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে একে একে শ্রদ্ধা জানানো হয়। আওয়ামী যুবলীগ, মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয়, মহানগর, বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শাখা ইউনিটগুলোর নেতা-কর্মীরা একে একে শ্রদ্ধা জানান ২১ আগস্ট নিহত ব্যক্তিদের প্রতি।

২১ আগস্ট স্মরণে বিকেল চারটায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে আওয়ামী লীগ। সভায় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে